ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

কলেজে গেস্ট লেকচারার-অধ্যাপক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার শুনানি হল কলকাতা হাইকোর্টে, জেনেনিন আপডেট

কলেজে গেস্ট লেকচারার-অধ্যাপক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার শুনানি হল কলকাতা হাইকোর্টে, জেনেনিন আপডেট

নিউজ ডেস্ক: রাজ্যে অতিথি অধ্যাপক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে মামলা দায়ের করা হয় কলকাতা হাইকোর্টে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে রাজ্যের কলেজগুলির অতিথি অধ্যাপকদেরকে স্থায়ী করে দেওয়া হয়। নাম দেওয়া হয় স্টেট এডেড কলেজ টিচার্স বা স্যাক্ট। এই নিয়োগে বেনিয়মের অভিযোগে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয়।

মামলাকারীর অভিযোগ, কলেজে গেস্ট লেকচারার নিয়োগেও বেনিয়ম হয়েছে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে নিয়োগ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি হয়। তাঁদের প্রশ্ন, “কলেজে শিক্ষক হওয়ার যোগ্যতা নেই, অথচ লেকচারার হিসেব নিয়োগ কীভাবে?” এই প্রশ্ন তুলে মামলা দায়ের হয়। মামলায় ১২ থেকে ১৪ হাজার গেস্ট লেকচারার নিয়োগ নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে। 

রাজ্যজুড়ে চুক্তিভিত্তিক লেকচারার নিয়োগকে কেন্দ্র করে দায়ের হওয়া মামলায় দু’সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা দিয়ে লিখিত বক্তব্য জানানোর আর্জি জানালেন মামলাকারী। আবেদনে সম্মতি দিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। ২১ নভেম্বর ফের শুনানি। মামলায় অভিযোগ, অধ্যাপক হওয়ার যোগ্যতা না-থাকা সত্ত্বেও অনেকেই নিয়ম বহির্ভূতভাবে নিয়োগ পেয়েছেন। 

কলেজের আংশিক সময়ের শিক্ষক, চুক্তিভিত্তিক পূর্ণ সময়ের শিক্ষক এবং অতিথি শিক্ষক এই তিন ধরনের পদ তুলে দিয়ে একটিই পদ গড়ার ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান, এই শিক্ষকদের বলা হবে ‘স্টেট এডেড কলেজ টিচার’।

মামলাকারীর বক্তব্য, ২০১৯ সালে কলেজ সার্ভিস কমিশনের বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে রাজ্যের কলেজগুলিতে ১২ হাজার অতিথি অধ্যাপককে স্থায়ী করে দেওয়া হয়। তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী ছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। অভিযোগ, এরমধ্যে বহু নিয়োগে যোগ্যতার ন্যূনতম মানদণ্ড মানা হয়নি। বেনিয়ম হয়েছে নিয়োগে। তাই নিয়েই মামলা দায়ের হয়েছে আদালতে।