ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

পুরোনো প্যানেল দিয়ে শুরু! এরপর প্রধান শিক্ষক, জটিলতা কাটলে উচ্চ প্রাথমিকে, শেষে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ

 

নিউজ ডেস্ক: রাজ্যে শীঘ্রই স্কুল সার্ভিস কমিশনের (এসএসসি) মাধ্যমে নতুন নিয়োগ। দু’দিন আগেই ঘোষণা করেছেন স্বয়ং শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। সেইমতো সহকারী শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষক মিলিয়ে প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করতে কোমর বাঁধছে সরকার এবং স্কুলশিক্ষা দপ্তর। 

জানা যাচ্ছে, মাস দেড়েকের মধ্যেই প্রকাশিত হতে পারে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি। শূন্যপদের সংখ্যা প্রায় হাজার তিনেক। বর্তমানে কর্মরত সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে থেকেই হবে সেই নিয়োগ। 

এসএসসি সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথমে নবম-দ্বাদশ শ্রেণির পুরনো প্যানেলের বর্ধিত শূন্যপদ পূরণের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী মিলিয়ে প্রায় সাত হাজার চাকরি হতে চলেছে। তারপরে শুরু হবে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ। আগামী মঙ্গলবার উচ্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের মামলাটি শুনানির জন্য কলকাতা হাইকোর্টে ওঠার কথা। আইনি জটিলতা কেটে গেলে সেই সাড়ে ১৪ হাজার শিক্ষককে নিযুক্ত করার প্রক্রিয়া চলবে সমান্তরালে। এসব শেষে আসবে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পালা।

জানা গিয়েছে, বিধিতে ব্যাপক পরিবর্তন এনেই নিয়োগের পথে হাটতে চলেছে কমিশন। সহকারী শিক্ষক পদের চাকরির জন্য পরীক্ষাগুলি হবে ‘টেট’-এর ধাঁচে। অর্থাৎ, মাল্টিপল চয়েস ভিত্তিক। উত্তর দিতে হবে ওএমআর শিটে। 

নিয়োগে স্বচ্ছতা আনতে এমসিকিউয়ের পরিকল্পনা। শুধু তাই নয়, ওএমআর শিট প্রযুক্তি বান্ধব। এতে উত্তরপত্র মূল্যায়নও করা যাবে দ্রুত। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অন্য এক আধিকারিক আবার বলেন, এসএসসির চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মজুমদার একসময় কলেজ সার্ভিস কমিশনের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি ইন্টারভিউয়ের সময় টিচিং ডেমনস্ট্রেশনে অভ্যস্ত। সেই কারণে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া ফিরিয়ে এনে সেখানে টিচিং ডেমনস্ট্রেশন রাখার পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর।

প্রধান শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রেও নিয়মে সামান্য পরিবর্তন আসছে। এতদিন এই পদে নিয়োগ হতো এসএসসির সুপারিশে। আইনগতভাবে নিয়োগকারী ছিল স্কুলের পরিচালন কমিটি। প্রধান শিক্ষক পদটি সিঙ্গল ক্যাডার পোস্ট (একটি স্কুলে একটিই পদ) হওয়ায় এতে কোনও সংরক্ষণ চালু ছিল না। এবার নিয়োগ হবে কেন্দ্রীয়ভাবে। আর সেই কারণেই সংরক্ষণের ১০০ পয়েন্ট রোস্টার কার্যকর করা যাবে। ফলে প্রথমবারের মত সংরক্ষণ ভিত্তিক নিয়োগ করা হবে প্রধান শিক্ষক।