Breaking News
Home / চাকরির খবর / UPSC ইন্ডিয়ান সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা ২০২০: আইএএস পরীক্ষার খুঁটিনাটি

UPSC ইন্ডিয়ান সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা ২০২০: আইএএস পরীক্ষার খুঁটিনাটি

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: আমাদের দেশের বেশির ভাগ চাকুরী প্রার্থীদের কাছে স্বপ্ন হল সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা দিয়ে আমলা হওয়া। ভারতীয় সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার মাধ্যমে IAS, IPS, IFS, IRS(IT) প্রভৃতি সার্ভিসে নিয়োগ করা হয়। আজ আমরা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব এই পরীক্ষা সম্পর্কে। ইন্ডিয়ান এডমেনিস্ট্র্যাটিভ সার্ভিস (IAS), ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিস (IPS), ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিস (IFS) সহ মোট ২৪টি গুরুত্বপূর্ণ পদের নিয়োগের জন্য এই পরীক্ষা প্রতি বছর নেওয়া হয়ে থাকে। ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিসন (UPSC) প্রতি বছরেই এই পরীক্ষাটি নিয়ে থাকে।

বয়স এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা:

যেকোন শাখার স্নাতক হলেই এই পরীক্ষায় বসা যায়। বয়স হতে হবে ২১ থেকে ৩২ বছরের মধ্যে। সংরক্ষিত প্রার্থীদের নিয়ম অনুসারে বয়সের ছাড় আছে। কোনো একজন পরীক্ষার্থী সর্বাধিক ৬ বার (‌ওবিসি–দের ক্ষেত্রে ৯ বার)‌ এই পরীক্ষাটি দিতে পারবেন। তফসিলি প্রার্থীরা যতবার ইচ্ছা এই পরীক্ষা দিতে পারেন।

পরীক্ষার ধরণ:

সর্বভারতীয় এই সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় হয় তিনটি স্তরে। প্রথমে ৪০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি বা প্রিলি এবং এতে উতরোলে তবে বসা যাবে মেন পরীক্ষায়। শেষ ধাপ হল ইন্টার্ভিউ। প্রিলি পরীক্ষাটি কেবল প্রার্থীদের শর্টলিস্টের জন্য স্ক্রিনিং পরীক্ষা। যাঁরা প্রিলি পরীক্ষায় পাশ করবেন, তাঁরা মেইন পরীক্ষার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। মেইন পরীক্ষায় পাস করা প্রার্থীরা ব্যক্তিগত সাক্ষাত্কার রাউন্ডে উপস্থিত হবেন। মেইন এবং ইন্টারভিউয়ের নম্বরের ভিত্তিতে চূড়ান্ত মেধা তালিকা প্রকাশিত হয়।

প্রিলি:‌ প্রিলিমিনারি পরীক্ষাটিতে থাকে দুটি পেপার, মোট ৪০০ নম্বরের— দুই ঘণ্টার পরীক্ষায় প্রতিটি পেপারে থাকে ২০০ নম্বর। প্রশ্ন হয় মাল্টিপল চয়েসধর্মী। প্রতি ভুল উত্তরের জন্য নেগেটিভ মার্কিং আছে। 

এক নজরে দুটি পেপারের সিলেবাস:- 

পেপার ১ (‌জেনারেল স্টাডিজ টেস্ট)‌: জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গুরুত্বসম্পন্ন সাম্প্রতিক ঘটনাবলি, ভারতের এবং ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস, ভারত ও বিশ্বের ভৌগোলিক পরিচিতি, ইন্ডিয়ান পলিটি অ্যান্ড গভর্ন্যান্স, অর্থনীতি ও সামাজিক উন্নয়ন, পরিবেশ ও বাস্তুবিদ্যাগত প্রাথমিক ধারণা, সাধারণ বিজ্ঞান। পূর্ণমান ২০০, সময় ২ ঘণ্টা, প্রশ্নের সংখ্যা ১০০, প্রতি প্রশ্নের মান ২।

পেপার ২ (‌অ্যাপটিটিউড টেস্ট)‌: কম্প্রিহেনশন, ইন্টারপার্সোনাল স্কিলস (‌কমিউনিকেশন স্কিল–‌সহ)‌, লজিক্যাল রিজনিং অ্যান্ড অ্যানালিটিক্যাল এবিলিটি, ডিসিশন মেকিং অ্যান্ড প্রবলেম সলভিং, জেনারেল মেন্টাল এবিলিটি, বেসিক নিউমারেসি (‌দশম শ্রেণি মানের)‌, ডেটা ইন্টারপ্রিটেশন, ডেটা সাফিশিয়েন্সি (‌দশম শ্রেণি মানের)‌। পূর্ণমান ২০০, সময় ২ ঘণ্টা, প্রশ্নের সংখ্যা ৮০টি। এই পেপার ২–‌তে কমপক্ষে ৩৩%‌ স্কোর করতেই হবে।

মেন:‌ প্রিলিতে পাস করলে প্রার্থীদের মেইন পরীক্ষায় বসা যায়। মেইন পরীক্ষায় মোট নম্বর থাকে ২৩৫০ (৬০০ + ১৭৫০)। মেইন–‌এর পেপারগুলি এক নজরে (‌পাশে বন্ধনীতে পূর্ণমান)‌ দেখে নিন:‌ 

পেপার ১: তালিকাভুক্ত যে কোনও একটি ভারতীয় ভাষা (‌৩০০);‌
পেপার ২: ইংলিশ (‌৩০০);‌
পেপার ৩: প্রবন্ধ রচনা (‌২৫০)‌;‌

পেপার ৪, ৫, ৬, ৭:‌ জেনারেল স্টাডিজ (২৫০x৪=১০০০);
পেপার ৮: অপশনাল সাবজেক্ট পেপার ১ (‌২৫০)‌;‌
পেপার ৯: অপশনাল সাবজেক্ট পেপার ২ ‌(২৫০)‌;‌

জেনারেল স্টাডিজের চারটি পেপারে যে সব বিষয়ের উপর প্রশ্ন আসে-

জিএস পেপার ১: ভারতীয় ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, ইতিহাস এবং বিশ্ব ও সমাজের ভূগোল
জিএস পেপার ২: শাসন, সংবিধান, রাষ্ট্র, সামাজিক বিচার এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক
জিএস পেপার ৩: প্রযুক্তিবিদ্যা, অর্থনৈতিক বিকাশ, জীববৈচিত্র্য, নিরাপত্তা ও বিপর্যয় মোকাবিলা
জিএস পেপার ৪: নীতিতত্ত্ব, ও স্বাভাবিক ক্ষমতা

 

৩) ইন্টার্ভিউ: সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার শেষ ধাপে হল ইন্টারভিউ বা পার্সোনালিটি টেস্ট। মেইন পরীক্ষাই অতিক্রম করলে, দিতে হবে ইন্টার্ভিউ। এখানে পূর্ণমান ২৭৫। সব মিলিয়ে ২০২৫ নম্বরের নিরিখে তৈরি হয় মেধাতালিকা। 

পরীক্ষা কেন্দ্র:

ইউপিএসসি মেইন পরীক্ষা নিচে তালিকাভুক্ত ভারত জুড়ে ২৪ টি বিভিন্ন শহরের পরীক্ষা কেন্দ্রগুলিতে অনুষ্ঠিত হয়:
আমেদাবাদ, দেরাদুন মুম্বাই, আইজল দিল্লি পাটনা, এলাহাবাদ, দিসপুর (গুয়াহাটি) রায়পুর, বেঙ্গালুরু হায়দ্রাবাদ রাঁচি,, ভোপাল জয়পুর শিলং, চন্ডিগড় জম্মু, সিমলা, চেন্নাই, কলকাতা, তিরুবনন্তপুরম, কটক, লক্ষ্ণৌ বিজয়ওয়াড়া।

কয়েকটি প্রয়োজনীয় বই:

১- প্রতিযোগিতা দর্পণের কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ম্যাগাজিন
২- রোজের সংবাদপত্র
৩- ইতিহাস – রেড্ডি (টাটা ম্যাগ্রোহিল)
৪- ভূগোল- হোসেন মাজিদ

৪- ভারতের সংবিধান- ডি ডি বাসু
৫- জি আই- আর এস অগরওয়াল
৬- ভারতের অর্থনীতি- রমেশ সিং, সঞ্জীব বর্মা।

কলকাতা এবং দিল্লির কয়েকটি কোচিং সেন্টার

১- রাওজ (দিল্লি)
২- প্যারামাউন্ট
৩- রাইস(কলকাতা, রাজ্যের অন্যান্য জেলায়)
৪- অ্যাকাডেমিক অ্যাসোসিয়েশন।

 

ইন্ডিয়ান সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা দিয়ে আপনি কোন কোন দপ্তরে চাকরি পেতে পারেন, দেখে নিন এক নজরে-

• Indian Administrative Service (IAS)
• Indian Police Service(IPS)
Central Services (Group A)
• Indian Foreign Service (IFS)

• Indian P&T Accounts and Finance Service(IP&TAFS)
• Indian Audit and Accounts Service (IA&AS)
• Indian Civil Accounts Service (ICAS)
• Indian Corporate Law Service (ICLS)
• Indian Defence Accounts Service (IDAS)

• Indian Defence Estates Service (IDES)
• Indian Information Service (IIS)
• Indian Ordnance Factories Service (IOFS)
• Indian Postal Service (IPoS)
• Indian Railway Accounts Service (IRAS)

• Indian Railway Personnel Service (IRPS)
• Indian Railway Traffic Service (IRTS)
• Indian Revenue Service (IRS-IT)
• Indian Revenue Service (IRS-C&CE)

• Indian Trade Service (ITrS)
• Railway Protection Force (RPF)
• Group B Services
• Armed Forces Headquarters Civil Services(AFHCS)

• Delhi, Andaman and Nicobar Islands Civil Service (DANICS)
• Delhi, Andaman and Nicobar Islands Police Service (DANIPS)
• Pondicherry Civil Service (PCS)
• Pondicherry Police Service (PPS)

Check Also

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি