Kode Iklan atau kode lainnya

লক্ষীর ভান্ডারের পর এবার বার্ধক্য ভাতা নিয়ে সুখবর, বিরাট সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার

বার্ধক্য ভাতা

বার্ধক্য ভাতা: রাজ্যের প্রবীণ নাগরিকদের জন্য সুখবর! লক্ষীর ভান্ডারের পর ‘বার্ধক্য ভাতা’ নিয়ে বড় ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। রাজ্যের গরিব ও দুস্থদের জন্য একাধিক আর্থিক ও সামাজিক প্রকল্পের ব্যবস্থা করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষমতায়নে লক্ষীর কন্যাশ্রী, শিক্ষাশ্রী, লক্ষীর ভান্ডার ও যুবশ্রী, সবুজ সাথীর মত প্রকল্পে গোটা রাজ্যের কোটি কোটি মানুষ উপকৃত হয়েছে।

লোকসভা ভোটের রেজাল্ট বেরোনোর আগেই লক্ষীর ভান্ডারের ভাতার পরিমাণ বৃদ্ধি করা হয়েছিল। এবার ‘বার্ধক্য ভাতা’ নিয়ে বড় ঘোষণা করল রাজ্য সরকার।

সম্প্রতি ‘বার্ধক্য ভাতা’ প্রকল্প নিয়ে রাজ্য সরকার সিধান্ত নিয়েছে আরও ৫০,০০০ মানুষের নাম নতুন করে নথিভুক্ত করা হবে। জানা যাচ্ছে, ইতিমধ্যেই নাম তোলার কাজ সরকারিভাবে শুরু করে দেওয়া হয়েছে। কয়েক মাসের মধ্যে কাজ শেষ হলেই সরাসরি ব্যাঙ্কে টাকা পৌঁছে যাবে। প্রচুর মানুষ এই সুবিধা পাবেন।

সাধারণত ৬০ বছর বয়স হলে মহিলা হোক বা পুরুষ সকলেরই কর্মক্ষমতা কমতে থাকে। তাই তাদের যাতে আর্থিক কোনো অসুবিধা না হয় তাই সরকারের তরফ থেকে আর্থিক সাহার্য করতে ‘বার্ধক্য ভাতা’ চালু করা হয়। সাধারণত ৬০ বছর হলে এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করা যায়। তবে কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে ৫৫ বছর বয়স হলেও আবেদন করা যেতে পারে।

এই বার্ধক্য ভাতা প্রকল্পে ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সের মানুষেরা প্রতি মাসে ₹১০০০ টাকা করে ভাতা পেয়ে থাকেন। রাজ্যে ২০ লাখ ১৫ হাজার মানুষকে এই প্রকল্পের অধীনে বর্তমানে ভাতা দেওয়া হয়। মাসের শুরুতে সরাসরি সুবিধাভোগীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে এই টাকা দেওয়া হয়। মোট প্রাপকের সঙ্গে আরও ৫০ হাজার সুবিধাভোগীর সংখ্যা বাড়তে চলেছে।

close