ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

SSC: অযোগ ১৬৯৮ জনের চাকরি বাতিল করতে তৎপর কলকাতা হাইকোর্ট! রাজ্যের কাছে জবাব চাইলেন বিচারপতি

নিউজ ডেস্ক: স্কুল সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে নিযুক্ত গ্রুপ ডি’র ১৬৯৮ জনের নিয়োগ কেন বাতিল হবে না? রাজ্যের কাছে জানতে চাইল কলকাতা হাইকোর্ট।  গ্রুপ ডি পদে নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে সিবিআই আগেই আদালতকে জানিয়েছিল, ২০১৬ সালের রিজিওনাল লেভেল সিলেকশন টেস্টের (আরএলএসটি) ভিত্তিতে ওই বছর মোট ১,৬৯৮ জনকে বেআইনি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই বেআইনি নিয়োগপত্রদের চাকরি কেন বাতিল হবে না—রাজ্যের কাছে সেই জবাব তলব করেছে হাইকোর্ট। 

ওয়েটিং লিস্টে তিন নম্বরে নাম থাকা সত্ত্বেও তাঁকে কেন নিয়োগ দেওয়া হয়নি, এই প্রশ্নে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন লিপিকা সাধুখাঁ নামে এক চাকরিপ্রার্থী। সেই মামলাতেই সিবিআই হাইকোর্টকে ১৬৯৮ জনের গ্রুপ ডি পদে অবৈধ নিয়োগ দেওয়ার কথা জানায়। এরপরেই সংশ্লিষ্ট জেলা স্কুল পরিদর্শকদের বেআইনিভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মীদের চিহ্নিত করে নোটিস পাঠানোর নির্দেশ দেন। মঙ্গলবার শুনানির সময় পাঁচশোর বেশি নোটিসপ্রাপ্ত কর্মী আদালতে হাজির হয়ে মামলায় পক্ষভুক্ত হওয়ার আবেদন জানান। কিন্তু তাঁদের আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন বিচারপতি। 

সিবিআইকে বিচারপতি বলেন, ‘কারা টাকা দিয়ে চাকরি পেয়েছেন, তা জানতেই হবে। বিতর্কিত শিক্ষক এবং শিক্ষাকর্মীদের সোজা গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করুন। ইয়ার্কি হচ্ছে? টাকার বিনিময়ে চাকরি বিলিয়ে পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ নিয়ে ছেলেখেলা করা হয়েছে। কে টাকা নিয়ে চাকরি দিল, তা জানার সময় এসেছে।’

স্কুল সার্ভিস কমিশনের উদ্দেশে বিচারপতি বসুর প্রশ্ন, ‘দুর্নীতি যেখানে পরিষ্কার, সেখানে এঁদের সরিয়ে দিতে এখনও কেন পদক্ষেপ করা হচ্ছে না?...কর্মীর অভাবে স্কুল বন্ধ হয়ে যাবে, এই আশঙ্কা থেকেই কি অযোগ্যদের চাকরি কেড়ে নেওয়া হচ্ছে না? তেমন হলে নতুন নিয়োগ করা হোক। দ্রুত নিয়োগের জন্য আপনারা কতটা প্রস্তুত?’ আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানির দিনই এসএসসিকে এই প্রশ্নের জবাব দিতে হবে।