ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে ৪০ হাজারেরও বেশি আবেদন জমা, নিয়োগের তৎপরতা শুরু প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের

৪০ হাজারেরও বেশি আবেদন জমা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য

নিউজ ডেস্ক: আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। ৪০ হাজারেরও বেশি আবেদন জমা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে এমনই খবর মিলছে।

গত ২১ অক্টোবর থেকে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ নিয়োগের জন্য আবেদন পত্র দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছিল অনলাইনে। ২১ নভেম্বর রাতটা ১২টা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন জমা নিয়েছে পর্ষদ। 

যদিও হাইকোর্টের নির্দেশে অফলাইনেও আবেদন জমা নিচ্ছে পর্ষদ বলেই দাবি পর্ষদের আধিকারিকদের। 

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে খবর শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ৪০ হাজারেরও বেশি আবেদন জমা পড়েছে। অনলাইনে জমা পরা আবেদনপত্র ও অফলাইনে জমা পড়া আবেদন পত্র স্ক্রুটিনি করে ইন্টারভিউ শুরু করতে যথেষ্ট সময় লাগবে বলেই মনে করছে পর্ষদ। সেক্ষেত্রে আগামী বছরের আগে ইন্টারভিউ শুরু করা সম্ভব নয় বলেও দাবি পর্ষদের আধিকারিকদের। 

১১ ডিসেম্বর টেট পরীক্ষাকেন্দ্রে মেটাল ডিটেক্টর। টেটের কেন্দ্রে মেটাল ডিটেক্টর রাখার সিদ্ধান্ত পর্ষদের। বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্সের পর এবার মেটাল ডিটেক্টর। মেটাল ডিটেক্টরের মাধ্যমে টেট পরীক্ষার্থীদের প্রবেশ। ইলেকট্রনিক গ্যাজেট আছে কিনা খতিয়ে দেখা হবে। পরীক্ষার্থীরা শুধুমাত্র অ্যাডমিট কার্ড ও পেন নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢুকতে পারবেন। 

পর্ষদ সূত্রে খবর, ১৪০০ এরও বেশি পরীক্ষাকেন্দ্রে এই পরীক্ষা নেওয়া হবে। বিভিন্ন জেলা থেকে যে তালিকা এসেছিল তার মধ্যে থেকেই পরীক্ষাকেন্দ্র ঠিক করা হয়েছে। পরীক্ষার ৭ দিন আগে থেকে পরীক্ষার্থীদের দেওয়া হবে অ্যাডমিট কার্ড।

পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্রে ন্যূনতম ২ ঘন্টা আগে ঢুকতে হবে। প্রায় ৭ লক্ষ পরীক্ষার্থী এবারের টেট দিতে চলেছে। আর তা কেন্দ্র করেই নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

ইতিমধ্যেই প্রত্যেকটি জেলায় কতগুলি পরীক্ষাকেন্দ্র থাকবে, তার তালিকা চূড়ান্ত করে ফেলেছে পর্ষদ। প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে নজরদারি করার জন্য বিশেষ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হচ্ছে। অর্থাৎ যাঁরা প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে বিশেষ নজরদারি চালাবেন।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ধাঁচেই পরীক্ষা ব্যবস্থা পরিচালনা করতে চায় পর্ষদ। তার জন্যই প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে পর্যবেক্ষক নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পর্ষদ। তবে পরীক্ষাকেন্দ্রগুলি পরীক্ষার্থীদের বাড়ি থেকে যাতে বেশি দূরে না হয় তার জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে পর্ষদ।

টেট পরীক্ষার নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঘিরেও বিশেষ সতর্ক পর্ষদ। বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্স এর পাশাপাশি মেটাল ডিটেক্টরও প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রে ব্যবহার করতে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। একটি বিশেষ প্রশিক্ষিত এজেন্সি দিয়ে এই মেটাল ডিটেক্টর প্রত্যেকটি পরীক্ষাকেন্দ্র জুড়ে ব্যবহার করা হবে পরীক্ষার্থীদের তল্লাশির জন্য।