ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

দুর্নীতিগ্রস্ত শিক্ষকদেরও পরিবার আছে: SSC, কোনও ভাবেই শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ নয়: বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু

 

School Service Commission

নিউজ ডেস্ক: ফের কলকাতা হাইকোর্টের তীব্র ভর্ৎসনার মুখে স্কুল সার্ভিস কমিশন! ‘ভেঙে দেওয়া হোক স্কুল সার্ভিস কমিশন’, এমনই মন্তব্য করলেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু। যোগ্য অথচ বঞ্চিতদের নিয়োগের জন্য ৬৮২১ টি অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করা হয় সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে। কমিশন দাবি জানায়, আদালতের নির্দেশে চাকরি হারানো শিক্ষকদের যেন সেই শূন্যপদে নিয়োগে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। এই দাবির প্রেক্ষিতেই কড়া প্রতিক্রিয়া দেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু। 

এদিন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু আদালতে শুনানি চলাকালীন বলেন, ‘শূন্যপদ নিয়ে রাজ্য ও স্কুল সার্ভিস কমিশনের অবস্থান আলাদা কেন? রাজ্য ও স্কুল সার্ভিস কমিশনের অবস্থান এক না হলে কমিশন ভেঙে দেওয়া হোক।’ এদিন বিচারপতি রাজ্য সরকারকে প্রশ্ন করেন, ‘কমিশনের বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপের কথা ভাবা হচ্ছে?’

গত ১৯ মে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তি জানানো হয়েছিল, বিভিন্ন পদে নিয়োগের জন্য ৬৮২১ টি অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করা হয়েছে। গ্রু সি, গ্রুপ ডি, নবম-দশম, দ্বাদশ, শারীরশিক্ষা, কর্মশিক্ষার মতো ক্ষেত্রে যোগ্য অথচ বঞ্চিতদের নিয়োগ করতেই এই অতিরিক্ত শূন্যপদের ঘোষণা। কিন্তু স্কুল সার্ভিস কমিশনের দাবি, আদালতের নির্দেশে যাদের চাকরি গিয়েছে, তাদেরই সেই শূন্যপদে নিয়োগের জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হোক। এই আবহে শুনানি চলাকালীন এদিন বিচারপতি বসু বলেন, ‘রাজ্যের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী আদালতের নির্দেশ মেনে বঞ্চিতদের নিয়োগ করার কথা। সেখানে কমিশনের আবেদন, অবৈধ চাকরি পাওয়াদের পুনর্বহালের জন্য অতিরিক্ত শূন্যপদ দেওয়া হোক।’

বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসুর বক্তব্য, যাঁদের চাকরি গিয়েছে, তাঁদের অন্য কাজের ব্যবস্থা করা হোক। কিন্তু তাদের কোনও ভাবেই শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ করা উচিত নয়। এতে শিক্ষার্থীরা বঞ্চিত হবে। এদিকে কমিশনের দাবি প্রসঙ্গে বিচারপতি রাজ্যকে পালটা প্রশ্ন করেন, ‘কমিশনের ওপর কি সরকারের আর নিয়ন্ত্রণ নেই?’ আগামীকাল সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে রাজ্যের জবাব তলব করেছে হাই কোর্ট।