ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

আদালতের নির্দেশ অমান্য করে আপার প্রাইমারি বা সেকেন্ডারিতে বিভাজন! হুঁশিয়ারি শিক্ষক সংগঠনের

Upper Primary, Secondary, Higher Secondary

নিউজ ডেস্ক: সম্প্রতি শিক্ষা দপ্তর থেকে নির্দেশিকা জারি করে রাজ্যের সমস্ত বিদ্যালয় জানানো হয়েছে ০৮.০৮.২০২২ -এর মধ্যে অনলাইনের মাধ্যমে ROA -র কাজটি সম্পন্ন করার জন্য। দেখা যাচ্ছে এই কাজের জন্য বিদ্যালয়ের কোড দিয়ে ঢুকে তারপর প্রত্যেক শিক্ষক শিক্ষিকার iosms ID দিয়ে আলাদাভাবে এডিট করতে বলা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে প্রত্যেক শিক্ষক বা শিক্ষিকার ক্ষেত্রে তিনটি অপশনের মধ্যে যেকোনো একটি অপশন পছন্দ করতে হবে সেই তিনটি অপশন হল Upper Primary, Secondary, Higher Secondary. এর বাইরে Normal Section কথাটির কোন উল্লেখ নেই। 

তারমানে বাধ্যতামূলকভাবে বিদ্যালয় স্তর থেকে এই বিভাজন করার কথা বলা হয়েছে। শুধু তাই নয়, যাদের আপার প্রাইমারি সিলেক্ট করা হবে তাদের সাবজেক্টের পাশে UP আর যাঁদের সেকেন্ডারি সিলেক্ট করা হবে তাদের পাশে সাবজেক্টের পাশে GRAD, আর যাদের Higher Secondary সিলেক্ট করা হবে তাদের সাবজেক্টের পাশে PG কথাটি লেখা থাকবে। অর্থাৎ নরমাল সেকশনে থাকা কোন শিক্ষক শিক্ষিকা পিজি স্কেল পেলেও যদি সেকেন্ডারি অথবা আপার প্রাইমারি হিসেবে তাকে দেখানো হয় তাহলে তাদের নামের পাশে যথাক্রমে UP এবং GRAD থাকবে. GRAD অর্থাৎ গ্রাজুয়েশন।

সম্প্রতি শিক্ষক সংগঠনের একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট থেকে অর্ডার দেওয়া হয়েছে যে, 2016 সালের আগে নিয়োজিত কোন শিক্ষক-শিক্ষিকার ক্ষেত্রে নরমাল সেকশনের পরিবর্তে আপার প্রাইমারি বা সেকেন্ডারি সেকশনে বিভাজন করা যাবে না। অদ্ভুতভাবে লক্ষ্য করা গেল এই রায়কে অমান্য করে বিদ্যালয় গুলিতে নরমাল সেকশনে নিয়োজিত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অন্য সেকশনে বিভাজন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী-শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চের সভাপতি বিশ্বজিৎ মিত্র এবং রাজ্য সম্পাদক কিংকর অধিকারী বলেন, “আমরা ডিআই অথবা শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশ পালন করব নাকি মহামান্য উচ্চ আদালতের কথা মানব? যেসব বিদ্যালয় প্রধান এই বিষয়টি ভালো করে জেনে বা না জেনে শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশিকা অনুযায়ী আপার প্রাইমারিতে বিভাজিত করছেন তাঁরা কি সঠিক কাজ করছেন? একই সাথে বলাই বাহুল্য যে, এই কাজটি করার মাধ্যমে আপনারা লিখিত স্পষ্ট নির্দেশ ছাড়াই উচ্চতর কর্তৃপক্ষ দ্বারা প্রকাশিত Post sanctioning memo, Prior permission of post এবং Approval of joining -এর বিরুদ্ধে গিয়ে এই কাজ করছেন। ভবিষ্যতে তাঁরা কিন্তু আইনি জটিলতার মধ্যে পড়তে পারেন।”

পাশাপাশি, বলেন, “আমরা অবিলম্বে শিক্ষা দপ্তরের এই নির্দেশিকা প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি। যদি কোন বিদ্যালয় প্রধান সহকারী শিক্ষক শিক্ষিকাদের অমতে বা না জানিয়ে এ কাজ করে থাকেন তাহলে তাঁরা অন্যায় করছেন। এক্ষেত্রে আমরা নরমাল সেকশনে থাকা সহকারী শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে জানাচ্ছি, আপনারা প্রত্যেকে আলাদা ভাবে বিদ্যালয়ে প্রধানের উদ্দেশ্যে নিজের বিদ্যালয়ের মেইল আইডিতে বিদ্যালয় প্রধানকে অনুরোধ করে জানান, কোনভাবেই যেন নরমাল সেকশনে থাকা শিক্ষক শিক্ষিকাকে আপার প্রাইমারি বা সেকেন্ডারীতে বিভাজন না করেন। যদি তিনি এ কাজ করে থাকেন তাহলে ভবিষ্যতে কোন সমস্যা হলে তিনি তার জন্য দায়ী থাকবেন। অর্থাৎ আপনি এই বিভাজনের ক্ষেত্রে আপনার নিজের অসম্মতি জানিয়ে রাখছেন। এরপরেও তিনি যদি কাজটি করেন তাহলে ভবিষ্যতে আপনি আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবেন। মাননীয় বিদ্যালয় প্রধানদের কাছে অনুরোধ, আপনারা কোর্টের রায় সহ সমস্যাটি শিক্ষা দপ্তরের কাছে তুলে ধরুন।”