ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

নজিরবিহীন: অনুব্রতের মেয়ে, ভাই, ভাইপো সহ ছয়জন টেট পাশ না করেই চাকরি, কড়া নির্দেশ আদালতের

 নজিরবিহীন: অনুব্রতের মেয়ে, ভাই, ভাইপো সহ ছয়জন টেট পাশ না করেই চাকরি, কড়া নির্দেশ আদালতের

নিউজ ডেস্ক: আরও বিপাকে অনুব্রত কন্যা সুকন্যা। টেট পাশ না করেও স্কুলে শিক্ষকতা করতেন সুকন্যা মণ্ডল। কলকাতা হাই কোর্টে মামলা দায়ের করা হল। মামলা দায়ের করলেন আইনজীবী ফিরদৌস শামিম। 

বুধবার সেই মামলার শুনানি শেষে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বড় নির্দেশ দিলেন। আদালত বলেছে, বৃহস্পতিবার অনুব্রত-কন্যা সহ তাঁর পাঁচ আত্মীয়কে দুপুর তিনটের মধ্যে হাইকোর্টে সশরীরে হাজিরা দিতে হবে। তাঁদের আদালতে হাজির করানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে বীরভূমের পুলিশ সুপার নগেন্দ্র ত্রিপাঠীকে নির্দেশ দিলেন বিচারপতি।

মামলাকারীর অভিযোগ, বোলপুরের কালিকাপুর প্রাইমারি স্কুলের দিদিমণি সুকন্যা। চাকরিতে যোগ দেওয়ার পর সুকন্যা কোনওদিন স্কুলেই যাননি। বরং স্কুল তার বাড়িতে চলে আসত। অর্থাৎ, হাজিরা খাতায় নাকি বাড়িতে বসেই সই করে দিতেন সুকন্যা।

আগামীকাল যাঁদের আদালতে তলব করা হয়েছে সেই তালিকায় সুকন্যা ছাড়াও রয়েছে সুমিত মণ্ডল, অর্ক দত্ত, সাত্যকি মণ্ডল, কস্তুরী চৌধুরী, সুজিত বাগদিকে। এঁরা সকলেই অনুব্রতর ঘনিষ্ঠ আত্মীয়, যাঁরা স্কুল শিক্ষক-শিক্ষিকার চাকরিতে নিয়োগ পেয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

যে ছয় জনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ রয়েছে, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন – অনুব্রত মণ্ডলের মেয়ে সুকন্যা মণ্ডল, অনুব্রতর ভাই সুমিত মণ্ডল, ভাইপো সাত্যকী মণ্ডল, নেতার পিএ অর্ক দত্ত। এছাড়া তালিকায় রয়েছেন কস্তুরী চৌধুরী ও সুজিত বাগদি নামে আরও দুই জন। তাঁরাও অনুব্রত মণ্ডলের ঘনিষ্ঠ বলে দাবি করা হয়েছে।

আগামী বৃহস্পতিবার এই ছয়জনকে টেট সার্টিফিকেট এবং নিয়োগপত্র নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে হাজিরা দিতে হবে। বুধবার এমনই নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটে ফের এই মামলার শুনানি রয়েছে। হাই কোর্টের থেকে স্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, হাজিরা না দিলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।