ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

করণিকের বাড়িতে গোছা গোছা নোট! শিক্ষা বিভাগের ক্লার্কের বাড়ি থেকে উদ্ধার ৮৫ লক্ষ টাকা

৮৫ লাখ টাকা উদ্ধার

নিউজ ডেস্ক: থরে থরে সাজানো টাকা৷ চিকিৎসা শিক্ষা বিভাগের করণিকের বাড়িতে নোটের পাহাড় দেখে চোখ কপালে মধ্যপ্রদেশ সরকারের  ইকনমিক অফেন্সেস উইং (ইওডব্লিউ)-এর৷  মধ্যপ্রদেশ সরকারের বেতনভুক ওই করণিকের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় ৮৫ লক্ষ টাকা৷ 

মধ্যপ্রদেশ পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধ শাখা (EOW) ভোপালে একজন ক্লার্কের বাড়ি থেকে ৮৫ লাখ টাকা উদ্ধার করেছে।  হিরো কেসওয়ানি নামে পরিচিত ওই ব্যক্তি নগদ টাকা উদ্ধারের পর একটি বিষাক্ত পদার্থ খেয়েছিলেন বলে জানা গেছে।  দলটি একটি অসম সম্পদের মামলার তদন্ত করছিল।

রিপোর্ট অনুযায়ী, কেশওয়ানি প্রতি মাসে ৫০,০০০ টাকা আয় করেন। দলটি অপরাধমূলক নথির একটি নোটও উদ্ধার করেছে যা কোটি টাকার সম্পত্তির ট্রেল প্রকাশ করে।

পুলিশ সুপার (EOW) রাজেশ মিশ্র পিটিআইকে জানিয়েছেন, বাড়িতে লুকিয়ে থাকা নগদ টাকার স্তূপ গণনা করার জন্য একটি নোট গণনার মেশিন আনতে হয়েছিল। রাজ্যের চিকিৎসা শিক্ষা বিভাগের সাথে সংযুক্ত উচ্চ বিভাগের ক্লার্ক বাথরুম ক্লিনার খেয়েছেন বলে দাবি করেছেন। তার অবস্থা স্থিতিশীল এবং উচ্চ রক্তচাপের চিকিৎসা চলছে।

একটি বেআইনি সম্পত্তি সংক্রান্ত মামলার তদন্তে তল্লাশি চালাচ্ছিল ইওডব্লিউ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বুধবার মধ্যপ্রদেশ সরকারের বেতনভুক চিকিৎসা শিক্ষা বিভাগের করণিক হিরো কেশওয়ানির বাড়িতে হানা দেন ইওডব্লিউ আধিকারিকরা৷ সেখান থেকেই এই বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা উদ্ধার করেন তাঁরা। নগদ উদ্ধার হতেই অসুস্থ হয়ে পড়েন অভিযুক্ত করণিক কেশওয়ানি৷ তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অসুস্থতার কারণে এখনও কেশওয়ানিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেননি ইওডব্লিউ আধিকারিকরা৷ তেমনটাই পুলিশ সূত্রে খবর।

জানা গিয়েছে, এই  কেশওয়ানি যখন চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন, তখন তাঁর বেতন ছিল মাত্র চার হাজার টাকা। তবে বর্তমানে তাঁর বেতন প্রায় ৫০ হাজার টাকা৷ এই বেতনে চাকরি করে কী ভাবে এত নগদ তাঁর বাড়িতে এল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সত্য খুঁজে বার করতে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন ইওডব্লিউ আধিকারিকরা৷