ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

সরকার সহজে ডিএ দেবে না! তীব্র আন্দোলনের মাধ্যমে ন্যায্য অধিকার ছিনিয়ে নেওয়ার ডাক শিক্ষকদের

 ডিএ কলকাতা হাইকোর্ট রাজ্য সরকারি কর্মী

নিউজ ডেস্ক: রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার একটি রিভিউ পিটিশন দাখিল করে রাজ্য। গত মে মাসে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন ও বিচারপতি রবীন্দ্রনাথ সামন্তের ডিভিশন বেঞ্চ রায় দিয়েছিল, আগামী তিন মাসের মধ্যে সরকারি কর্মীদের সকল বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মিটিয়ে দিতে হবে।

কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিল তিন মাসের মধ্যে বকেয়া ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা রাজ্য সরকারি কর্মীদের মিটিয়ে দিতে হবে। একই সঙ্গে মন্তব্য করা হয়েছিল, ডিএ হল একজন কর্মচারীর মৌলিক অধিকার। সেই সময় প্রায় শেষ হতে চলল। আর মাত্র দিন দশেক বাকি আছে। এরই মধ্যে ফের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হল রাজ্য। আগের নির্দেশ পুনর্বিবেচনার করার আর্জি জানিয়ে আদালতের দরজায় গেল নবান্ন। 

জানা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার অনলাইনে রিভিউ পিটিশন জমা দেওয়ার কাজ সম্পন্ন করেছে রাজ্য সরকার। যদিও এখনও মানলাকারীদের নোটিস দেওয়া হয়নি। রিভিউ পিটিশনের আবেদন গ্রহণ হলেই সেই নোটিস যাবে।

রাজ্যের এই সিদ্ধান্তকে ধিক্কার জানিয়ে শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী-শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চের রাজ্য সম্পদক কিংকর অধিকারী বলেন, “ডিএ মামলায় রাজ্য সরকার অনলাইনে review petition ফাইল করেছে। এর দ্বারা বোঝা যাচ্ছে, রাজ্য সরকার সরকারি কর্মচারীদের ন্যায্য প্রাপ্য সহজে দেবে না। সরকার তার সমস্ত সাফল্যের কৃতিত্ব শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী সরকারি কর্মচারী ডাক্তার নার্সদের উপর ভর করে তুলে নেবে অথচ তাদের ন্যায্য পাওনা দেবে না। সরকারের এই কর্মচারী বিরোধী ভূমিকাকে তীব্র ধিক্কার জানাই।”

একই সঙ্গে তিনি বলেন, “সকল ডিএ প্রাপক শিক্ষক, কর্মচারীর কাছে আবেদন, আসুন, সরকারের এই ভূমিকার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ আন্দোলন গড়ে তুলি। ডিএ এবং দুর্নীতি মুক্ত স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চের ডাকে ২৭ আগস্ট কলকাতায় বিক্ষোভ প্রতিবাদ মিছিল এবং মুখ্যমন্ত্রীর নিকট ডেপুটেশন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে তাতে কলকাতার রাজপথ ভরিয়ে দিতে আসুন সবাই। আন্দোলনের মাধ্যমেই অধিকার আমাদের কেড়ে নিতে হবে।”