ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

SSC SCAM: ইন্টারভিউ না দিয়েই চাকরি পেয়েছেন মন্ত্রীর মেয়ে! এই প্রথম আদালতে স্বীকার করল পর্ষদ

নিউজ ডেস্ক: কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে চাকরি আগেই বাতিল হয়েছে মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর কন্যা অঙ্কিতা অধিকারীর। অভিযোগ ছিল দুর্নীতি করে তাকে শিক্ষিকা পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। ইন্টারভিউ ছাড়াই চাকরি পেয়েছেন মন্ত্রীর মেয়ে! এই প্রথম আদালতে স্বীকার করল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরশ অধিকারীর মেয়ে অঙ্কিতার নিয়োগের ক্ষেত্রে বেনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে প্রথম থেকেই। সেটাই এবার স্বীকার করে নিল পর্ষদ।

শুক্রবার এসএসসি সংক্রান্ত মামলায় প্রথমবার মধ্যশিক্ষা পর্ষদ স্বীকার করে নিল যে অঙ্কিতা কোনও দিনই ইন্টারভিউ দেননি। অর্থাৎ ইন্টারভিউ ছাড়াই চাকরি হয়ে গিয়েছিল মন্ত্রী-কন্যার।

শুক্রবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বেঞ্চে ছিল এই মামলার শুনানি ছিল। সেখানেই মধ্যশিক্ষা পর্ষদের আইনজীবী সুতনু পাত্র জানিয়েছেন, অঙ্কিতা আসলে কোনও ইন্টারভিউ দেননি। খোদ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের চেয়ারম্যানই এ কথা জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করেছেন আইনজীবী।

পর্ষদের এই স্বীকারোক্তি প্রসঙ্গে মামলাকারী ববিতা সরকার বলেন, প্রথম দিনই এ কথা মনে হয়েছিল। তিনি জানান নিয়োগে দ্বিতীয় তালিকা যখন বেরল, তখন থেকেই সন্দেহ হয়েছিল তাঁর। কোন পথে অঙ্কিতার নাম তালিকায় উঠল, সেই প্রশ্ন মনে জেগেছিল। পরে এই বিষয়ে জানতে বিভিন্ন জায়গায় দৌড়েছেন ববিতা। প্রথমে স্কুল সার্ভিস কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। পরে ভুয়া খবর ছড়িয়ে যায় যে অঙ্কিতা নাকি আরটিআই করায় তাঁর নম্বর বেড়েছে, তাই তালিকায় নাম উঠেছে। ববিতার দাবি, পরে তাঁরা বুঝতে পারেন এ ভাবে আরটিআই করে নম্বর বাড়ানো যায় না, এটা ভুয়া খবর।

ইতিমধ্যে অঙ্কিতাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে আদালতের নির্দেশে। সেই সঙ্গে ৪১ মাস ধরে যে টাকা তিনি পেয়েছেন বেতন হিসেবে, তা ফেরত দেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। অঙ্কিতার চাকরি ববিতাকে ১০ দিনের মধ্যে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। পাশাপাশি, অঙ্কিতা বেতন বাবদ যত টাকা পেয়েছিলেন, সমস্ত টাকা ববিতাকে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।