ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

তৃণমূলকে উৎখাত সিপিএমের সঙ্গ চাইলেন চাইলেন শুভেন্দু, সরাসরি প্রত্যাখ্যান সিপিএম নেতার

 

নিউজ ডেস্ক: তৃণমূলকে রুখতে এবার সিপিএমের সঙ্গ চাইলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। বামেদের (BJP Left Alliance Proposal) প্রতি তাঁর খোলা আহ্বান, "আসুন একসঙ্গে তৃণমূলকে উৎখাত করি৷" যদিও বিরোধী দলনেতার এই আশায় জল ঢেলে দিলেন খেজুরির সিপিএম নেতা হিমাংশু দাস৷ তাঁর পাল্টা দাবি, শুভেন্দু অধিকারীর ডাকে সাড়া দেবেন না খেজুরির সিপিএম কর্মীরা৷ 

গণতন্ত্র রক্ষার দাবি তুলে আজ খেজুরি বিধানসভার দক্ষিণ কুণ্ঠা থেকে ধোবাপুকুর পর্যন্ত মিছিল করেন শুভেন্দু অধিকারী৷ এরপর ধোবাপুকুরে একটি সভা করেন তিনি। সেই সভা থেকেই সরাসরি সিপিএমকে সঙ্গে থাকার আহ্বানে জানান বিরোধী দলনেতা৷ 

শুভেন্দু বলেন, "আমার বহু সিপিএম বন্ধু শান্তনুকে জেতানোর কাজে সাহায্য করেছে৷ সিপিএমের সবাই খারাপ নয়৷ বামপন্থীদের বলব, আগে আসুন, এই তোলামূল, এই জেহাদিদের পার্টিকে আমরা আগে পরিষ্কার করি৷" তৃণমূলের সরকার 100 দিনের কাজ, প্রধানমন্ত্রীর আবাস যোজনা এমনকী লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প নিয়েও দুর্নীতি করছে বলে অভিযোগ করেন শুভেন্দু৷

ত্রিপুরা প্রসঙ্গে শুভেন্দু বলেন, "ওরা বলছে, ত্রিপুরায় নাকি গণতন্ত্র নেই৷ এখানে 2018 সালে পঞ্চায়েতে 34 শতাংশ আসনে প্রার্থী দিতে দেওয়া হয়নি৷ ত্রিপুরায় বিপ্লব দেব ভদ্রলোক বলেই, সেখানে বিজেপি উদারবাদী বলেই 51টি আসনে প্রার্থী দিতে পেরেছে তৃণমূল৷ ত্রিপুরায় জঙ্গলরাজের কথা বলছে ওরা, তাহলে পশ্চিমবঙ্গে যে রাজনৈতিক সন্ত্রাস চলছে, তাহলে একে কী বলবেন? ওটা যদি জঙ্গল হয়, তবে এটা জঞ্জাল৷"

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর এই প্রস্তাব অবশ্য সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছেন খেজুরির সিপিএম নেতা হিমাংশু দাস৷ তাঁর জবাব, 'শুভেন্দু অধিকারীর ডাকে খেজুরির সিপিএম কর্মীরা সাড়া দেবেন না। কারন সিপিএম কর্মী সমর্থকরা তৃণমূলেরও বিরোধী, বিজেপির-ও বিরোধী।'

কলাগাছিয়ার সভা থেকে পাল্টা শুভেন্দু অধিকারীকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা থেকে নির্বাচিত দুই মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র ও অখিল গিরি৷ সৌমেন মহাপাত্র হুঁশিয়ারি দেন, খেজুরিতে ২০২৩ -এ একটাও পঞ্চায়েত পাবে না বিজেপি। আরেক মন্ত্রী অখিল গিরি বলেন, পঞ্চায়েত তো অনেক দূর, আগে পুরভোটে কাঁথি পুরসভা দখল করে দেখান শুভেন্দু অধিকারী৷