ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

পরীক্ষা না দিয়েই হয়ে যাচ্ছেন ডাক্তার! চাঞ্চল্যকর প্রতারণার পর্দা ফাঁস NEET পরীক্ষায়

  

নিউজ ডেস্ক: ডাক্তারির প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে আরও এক জালিয়াতির ছবি সামনে এল। প্রবেশিকা পরীক্ষায় একটা উত্তরও নিজে লেখেননি। তাঁর বদলে পরীক্ষা দিয়েছেন অন্য কেউ। National Eligibility cum Entrance Test অর্থাৎ NEET পরীক্ষা নিয়ে এমনই প্রতারণা চক্রের পর্দাফাঁস করল পুলিশ। সম্প্রতি নিট পরীক্ষা চলাকালীন উত্তরপ্রদেশে দুই ভুয়ো পরীক্ষার্থী ধরা পড়লে সামনে আসে এই জালিয়াতির কথা। এই প্রতারণা চক্রের জাল ভারতের সব রাজ্যেই কম বেশি ছড়িয়ে পড়েছে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

বারাণসী পুলিশ কমিশনারের মতে, গোটা ঘটনার মাস্টারমাইন্ডের আসল নাম নীলেশ সিং।  তিনি পালিয়ে গিয়েছেন। নীলেশ বিহারের ছাপরা শহরের বাসিন্দা যিনি পাটনায় থাকেন।  

পুলিশের একটি প্রেস নোট অনুসারে, দলটি আসল প্রার্থীদের জায়গায় NEET পরীক্ষার জন্য বসে এবং তাদের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে সাহায্য করে।  আসল প্রার্থীদের কাছ থেকে তাদের পরীক্ষায় বসতে এবং পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে সাহায্য করার জন্য এই দলটি মোটা অঙ্কের টাকা নেয় বলে অভিযোগ। কমিশনারের মতে, এই মামলার সঙ্গে আরও গ্রেপ্তার হতে পারে।  

কিছুদিন আগে, সেন্ট ফ্রান্সিস জেভিয়ার স্কুলে NEET পরীক্ষার সময় দুই ভুয়ো পরীক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল, যার পরে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ এই গ্যাংয়ের কাজ সম্পর্কে একটি বিবৃতি দেয়।  উত্তর প্রদেশ ও বিহার থেকে এই চক্রটি কাজ করে বলে জানা গেছে।  এছাড়াও, বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিডিএস ছাত্রকে রবিবার বারাণসী পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

তদন্তের সময়ই বারাণসী পুলিশ জানতে পারে যে মাস্টারমাইন্ড বিহারের।  অভিযুক্তদের ধরতে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।  পাশাপাশি, অন্য একটি ক্ষেত্রে, একজন মেডিকেল ছাত্র এবং অন্য একজনকে গ্যাংয়ে জড়িত থাকার জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

বারাণসী পুলিশের জারি করা প্রেস নোটে বলা হয়েছে, এই গ্যাং দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছে।  গ্যাং এর সদস্যরা আসল প্রার্থীদের পরিবর্তে NEET পরীক্ষায় অংশ নিতেন এবং তাদের সেই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে সাহায্য করতেন।  বিনিময়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা নেওয়া হয়।

গত দুবছরে এই প্রতারণা চক্রের জেরে ফুলে ফেঁপে উঠেছিল পিকে-এর রোজগার। পাকা বাড়ি, ফ্ল্যাট, একাধিক বিলাসবহুল গাড়ি সহ বেশ কিছু জমিও কিনেছে এই কয়েক বছরে। এই কাণ্ডে জড়িতদের খোঁজে অনুসন্ধান করছে পুলিশ। অচিরেই এই কেসে গ্রেফতারির সংখ্যা আরও বাড়তে চলেছে বলেই খবর।