ব্রেকিং

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

রাজ্যে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে টাকার জোগান হলেও বঞ্চিত কর্মচারীরা, ডিএ মামলা নিয়ে আইনজীবীর কটাক্ষ


নিউজ ডেস্ক: এই মুহূর্তে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা ২৮ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা (ডিএ) পান। কিছুদিন আগেই ১১ শতাংশ ডিএ বাড়িয়েছে কেন্দ্র। উৎসবের মরশুম শুরুর আগেই কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য আসতে চলেছে আরও খুশির খবর। আরও এক দফায় মহার্ঘ ভাতা বাড়াতে পারে কেন্দ্র। এবার তিন শতাংশ বাড়ানো হতে পারে ডিএ। এটা দেওয়া হলে মহার্ঘ ভাতা বেড়ে দাঁড়াবে ৩১ শতাংশ। অথচ রাজ্যে ডিএ-র দেখা নেই!

মহার্ঘ ভাতার দাবি নিয়ে আদালতে চলছে মামলা। ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’-এর মতো প্রকল্প চালু করার টাকা রয়েছে রাজ্য সরকারের কাছে ৷ অথচ রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ মেটানোর টাকা নেই ভাঁড়ারে ! মঙ্গলবার এনিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে দাঁড়িয়েই হতাশা প্রকাশ করেন ডিএ মামলায় মামলাকারীদের আইনজীবী সর্দার আমজাদ আলি ৷ 

বিচারপতি সৌমেন সেন ও বিচারপতি হিরণ্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে ডিএ সংক্রান্ত মামলার শুনানি হল গতকাল। সওয়াল-জবাব চলাকালীন উঠে আসে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের প্রসঙ্গ৷ মামলাকারীরা লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নিয়ে কটাক্ষ না করলেও তাঁদের বক্তব্য, একের পর এক জনকল্যাণমুখী প্রকল্পের জন্য যদি টাকা থাকে রাজ্যের কাছে, তাহলে রাজ্য সরকারি কর্মীরাই বা কেন তাঁদের প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত হবেন ? 

মামলাকারীদের আইনজীবী সর্দার আমজাদ আলি আদালতে বলেন, ‘‘রাজ্য একাধিকবার রিভিউ অ্যাপ্লিকেশন করেছে৷ আর কতবার রিভিউ অ্যাপ্লিকেশন করবে? মামলায় পঞ্চম পে কমিশন নিয়ে বিচার চলছে৷ অথচ কেন্দ্রে ষষ্ঠ পে কমিশন কার্যকর হয়ে গিয়েছে৷ এই বিষয়টিও আদালতের দেখা উচিত৷’’ 

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে রাজ্যের তরফে অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের নাকি কোনও টাকাই ডিএ বাবদ বকেয়া নেই! রাজ্যের ক্ষমতা অনুযায়ী ধাপে ধাপে ডিএে দেওয়া হয়েছে৷ ইতিমধ্যেই ১২৫% দেওয়া হয়েছে৷ বাকিটা নিয়ে আলোচনা চলছে। কেন্দ্র সরকারের সঙ্গে রাজ্যের তুলনা করা ঠিক নয়। রাজ্য সামর্থ্য অনুযায়ী কর্মচারীদের ডিএ দিয়েছে।’’

এই বিষয়ে  আমজাদ বাবুর বক্তব্য, সত্যিই যদি কোনও টাকা বকেয়া না থাকে তাহলে সেটাই লিখিত আকারে আদালতকে জানাক সরকার পক্ষ৷ আগামী বৃহস্পতিবার দুপুর দু’টোর সময় এই মামলার পরবর্তী শুনানি রয়েছে।