Breaking News
Home / পশ্চিমবঙ্গ / স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশনি বন্ধ করতে এবার সরাসরি রাজ্যপাল জগদীপ ধানখড়েরই দ্বারস্থ গৃহশিক্ষকরা

স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশনি বন্ধ করতে এবার সরাসরি রাজ্যপাল জগদীপ ধানখড়েরই দ্বারস্থ গৃহশিক্ষকরা

নিউজ ডেস্ক: রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তর সার্কুলার জারি করে স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশনি বা কোচিং করে পড়ুয়াদের পড়ানোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। দোষী প্রমাণিত হলে চাকরি নিয়েও টানাটানি পড়ে যেতে পারে শিক্ষকদের। কিন্তু তারপরেও বন্ধ করা যাচ্ছে না শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশন। স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশনি বন্ধ করতে এবার রাজ্যপাল জগদীপ ধানখড়ের দ্বারস্থ হতে চলেছেন গৃহশিক্ষকরা। আজ, সোমবার রাজভবনে যাবেন গৃহশিক্ষকদের সংগঠনের প্রতিনিধিরা। স্কুলশিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশনি করার ফলে একদিকে যেমন ক্লাসে পঠনপাঠন ব্যাপক ভাবে ব্যাহত হচ্ছে, অন্যদিকে রুজি-রুটির টান পড়েছে গৃহশিক্ষকদেরও।

এই প্রসঙ্গে প্রাইভেট টিচার ওয়েলফেলার অ্যাসোসিয়েশনের উলুবেড়িয়া মহকুমার সভাপতি শেখ জাহির হোসেন বলেন, শিক্ষকদের একাংশ এখন আর ক্লাসে পড়াতে আগ্রহই দেখান না। তাঁরা শিক্ষকের মত পেশাকেও ব্যাবসাতে পরিণত করে ফেলেছেন। স্কুলের পড়ুয়াদের বাড়িতে পড়িয়ে মাসে মোটা টাকা রোজগার করছেন। ফলে যেসব বেকার যুবক-যুবতী গৃহশিক্ষকতা করে জীবিকা নির্বাহ করেন, তাঁরা ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন।

এখন প্রশ্ন উঠছে, পড়ুয়ারা কেন শুধু স্কুলশিক্ষকদের কাছেই পড়তে চাইছে? এই নিয়ে গৃহশিক্ষকদের দাবি, এর জন্য দায়ী স্কুলশিক্ষকরা। তাঁরাই পড়ুয়াদের বোঝাচ্ছেন যে, একমাত্র তাঁদের কাছে পড়লেই পরীক্ষায় বেশি নম্বর উঠবে। বর্তমানে প্রোজেক্ট ও প্র্যাকটিক্যাল-সহ বিভিন্ন বিষয়ের নম্বর সংশ্লিষ্ট স্কুলের শিক্ষকই দিয়ে থাকেন। অনেক সময় দেখা যায়, যেসব পড়ুয়ারা স্কুলের শিক্ষকদের কাছে প্রাইভেট টিউশনি পড়ছে না, তাঁদের প্রাপ্ত নম্বর অনেকসময় কমিয়ে দেওয়া হয়।

স্কুলশিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশনি বন্ধ করার লক্ষ্যে অনেকদিন ধরেই আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে WBPTWA এবং PTWA নামে গৃহশিক্ষকদের দুটি সংগঠন। যে সমস্ত শিক্ষক প্রাইভেট টিউশনি করেন, তাঁদের তালিকা জমা দিয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও দরবার করেছেন তাঁরা। কিন্তু তেমন কোনো কাজ হচ্ছে না। স্কুল শিক্ষকেরা বহাল তবিয়তেই চালিয়ে যাচ্ছেন টিউশনি। ফলে এবার সরাসরি রাজ্যপাল জগদীপ ধানখড়েরই দ্বারস্থ হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গৃহশিক্ষকরা।

Check Also

বর্তমানে কি অনুপ্রবেশ সবচেয়ে বড় সমস্যা? শিক্ষিতরাও ধন্দে!

কিংকর অধিকারী: এ রাজ্যের বিজেপি সভাপতি মাননীয় দিলীপ ঘোষ মহাশয় বলেছেন, এক কোটি মুসলমান অনুপ্রবেশকারীকে …

পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল সহ পাকড়াও এক পার্শ্বশিক্ষক, অভিযোগের সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন!

নিউজ ডেস্ক: প্রশ্ন আউট ঠেকাতে ও অবাঞ্চিত ঘটনা রুখতে মোবাইল ফোন নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকা পুরোপুরি …

২৫% হারে পেনশন বাড়ছে রাজ্যের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের, জারি বিজ্ঞপ্তি!

নিউজ ডেস্ক: আগেই রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে পেনশন বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। এবার …

প্রশ্ন ফাঁস করলে বা মোবাইল নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে ধরা পড়লে আজীবন বহিষ্কার পরীক্ষার্থীকে!

নিউজ ডেস্ক: প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে বারে বারে অস্বস্তিতে পড়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। আগামী ১২ মার্চ থেকে …

প্রয়াত যাদবপুরের প্রাক্তন সাংসদ ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নেতাজী পরিবারের সদস্যা শ্রীমতি কৃষ্ণা বসু

নিউজ ডেস্ক: চলে গেলেন প্রাক্তন যাদবপুরের প্রাক্তন সাংসদ ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নেতাজী পরিবারের সদস্যা শ্রীমতি …

অবশেষে সংশোধিত পেনশন সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি রাজ্যের, বড় স্বস্তি অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের

নিউজ ডেস্ক: আগেই রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে পেনশন বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। এবার …

ডিএ শূণ্য, বাড়ির ভাড়ার অনুদান ১৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১২ শতাংশ, বাড়ছে ক্ষোভ, মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি কর্মচারী সংগঠনের

নিউজ ডেস্ক: বর্তমানে ডিএ শূণ্য। ডিএ বৃদ্ধির ব্যাপারে কোনও হেলদোল নেই রাজ্যের। ষষ্ঠ বেতন কমিশন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.