Breaking News
Home / ভারত বর্ষ / সিবিএসই দ্বাদশ পরীক্ষায় ৪৯৯/৫০০ পেয়ে যুগ্ম ভাবে প্রথম হলেন হান্সিকা শুক্লা, হতে চান আইএফএস অফিসার

সিবিএসই দ্বাদশ পরীক্ষায় ৪৯৯/৫০০ পেয়ে যুগ্ম ভাবে প্রথম হলেন হান্সিকা শুক্লা, হতে চান আইএফএস অফিসার

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ সেকেন্ডারি এডুকেশন (সিবিএসই) বৃহস্পতিবার দ্বাদশ শ্রেণীর বোর্ড পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেছে। সার্বিক ভাবে মেয়েদের ফল ছেলেদের থেকে ভালো হয়েছে। যুগ্ম ভাবে দুজন মেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। 

হান্সিকা শুক্লা ডিপিএস মিরাট রোড, গাজিয়াবাদ এবং করিশমা অরোরা এসডি পাবলিক স্কুল, মুজাফ্ফরনগর উভয়ই ৪৯৯/৫০০ নম্বর, ৯৯.৮০% পেয়ে দেশের মধ্যে যুগ্ম ভাবে প্রথম স্থান দখল করেছেন।

প্রথম স্থান দখলকারী হান্সিকা শুক্লা বলেন, “আমি আমার বাবা-মা এবং শিক্ষকদের কাছ থেকে সব বিষয়ে সমর্থন ও সাহার্য্য পাওয়ার জন্য এই কর্তৃত্ব অর্জন করতে পেরেছি। তারা সবসময় আমাকে উৎসাহ দিতেন এবং বলতেন তুমি পারবে”।

হান্সিকা তার বিষয় হিসেবে ইতিহাস, সঙ্গীত (ভোকাল), মনোবিজ্ঞান, ইংরেজি এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বেছে নিয়েছিলেন। তিনি ইংরেজি ছাড়া সমস্ত বিষয়ে ১০০ নম্বর পেয়েছেন। ইংরেজিতে পেয়েছেন ৯৯।

হান্সিকা কোথাও কোন কোচিং নেননি এবং নিজেই পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকতেন এবং পরিবর্তে অবসর সময়ে সঙ্গীত শুনতেন। তিনি আরও বলেন যে তিনি সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে চান এবং আইএফএস অফিসার হতে চান।

বোর্ডের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানান “ফলাফল বোর্ডের ওয়েবসাইটে দেখা যাচ্ছে এবং শিক্ষার্থীরা তাদের এডমিট কার্ড আইডি ব্যবহার করে পরীক্ষার ফল দেখতে পারেন”। পরীক্ষার শেষ তারিখের 28 দিনের মধ্যে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে।

এবছর সিবিএসই দ্বাদশ পরীক্ষা ১৬ই ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছিল। মোট ১৩ লাখ শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছিলেন।

একনজরে সিবিএসই দ্বাদশের ফল:-

*কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ের পাসের হার ৯৮.৫৪ শতাংশ
* ছেলেদের পাসের হার ৭৯.৪০ শতাংশ
*মেয়েদের পাসের হার ৮৮.৭০ শতাংশ

রেজাল্ট দেখার জন্য লিংক :-

http://cbseresults.nic.in/class12/Class12th19.

Check Also

কোনো ধর্মীয় গ্রন্থ নয় প্রমাণ অনুন, রাম জন্মস্থান পুনর্জীবন কমিটির আইনজীবীকে প্রধান বিচারপতি

বাবরি মসজিদ

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *