Breaking News
Home / Uncategorized / সিবিআই, মোদী সরকার ও নিরেপেক্ষতা

সিবিআই, মোদী সরকার ও নিরেপেক্ষতা

বিশ্ব বাংলা নিউজ পোর্টাল: কয়েকদিন ধরেই লক্ষ্য করছি, সারা ভারতের বিভিন্ন জায়গা থেকে কালি পটকা সহ ভয়ানক সব আই এস আই এস জঙ্গী ধরা পড়ছে। খাগড়াগড়ে পারমানবিক বিস্ফোরণে অভিযুক্ত ভয়ানক সব রাজমিস্ত্রি জঙ্গীরা ধরা পড়ছে। জীবন্ত আগ্নেয়গিরির মতো এন আই এ জেগে উঠেছে। সিবিআই জ্বলে উঠেছে। এগুলি কিসের আলামত? বিজেপি ভয় পেয়েছে, হারের ভয় পেয়েছে।

উত্তরপ্রদেশে অখিলেশ-মায়াবতী বিজেপি বিরোধী জোট করতেই তাদের বিরুদ্ধে সিবিআই লেলিয়ে দেওয়া হয়েছে। কেজরিওয়ালদের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশ এবং স্পেশাল ব্রাঞ্চ লেলিয়ে দেওয়া হয়েছে। তেজস্বী যাদবের বিরুদ্ধে সিবিআই লেলিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিজেপির জোট থেকে বেরিয়ে এসে বিজেপির বিরোধিতা করতেই চন্দ্রবাবু নাইডুর বিরুদ্ধে সিবিআই লেলিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্রাকে এনডিটিভি-র স্টুডিও থেকে বের করে দেওয়ার কারণে এনডিটিভির উপর কেন্দ্রীয় সংস্থার আগ্রাসন আমরা দেখেছি। আমরা দেখেছি, সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগে মুসলিম ধর্মপ্রচারক ডঃ জাকির নায়েকের পেছনে সাম্প্রদায়িক সরকার তার কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে লেলিয়ে দিয়েছে।

বিভিন্ন চিটফান্ড কাণ্ডে বহু মানুষের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, একথা ঠিক। কিন্তু সিবিআই-এর এই অভিযান কি দোষীদের গ্রেপ্তার করে ভুক্তভোগীদের বিচার পাইয়ে দিতে? বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্র একদমই সঠিক প্রশ্ন তুলেছেন,
‘এতদিন সিবিআই কী করছিল?’

না, সাধারণ মানুষকে বিচার পাইয়ে দিতে নয়, দোষীদের শাস্তি দিতে নয়- সিবিআই কাজ করছে মূলত বিজেপি-আরএসএস এর তাঁবেদার হিসেবে। সিবিআই যদি সত্যিই নিরপেক্ষ হিসেবে কাজ করতো, তাহলে এতদিন মুকুল রায়, বাবুল সুপ্রিয়দের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতো। নেয়নি কারণ, তারা আজ বিজেপিতে পবিত্র। বিগত পাঁচবছর ধরে সিবিআই নাদুসনুদুস করে ঠিক ভোটের আগে অতি তৎপরতা দেখিয়ে প্রমাণ করছে, তারা আসলে সেন্ট্রাল বিজেপি ইনভেস্টিগেশন।

মমতাকে পছন্দ করুন অথবা না করুন, ক্ষুদ্র রাজনৈতিক স্বার্থে বিজেপির নির্দেশে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলির এই আগ্রাসন সমর্থন করবেন না। দয়া করে কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলির গেরুয়াকরণ সমর্থন করবেন না। নিজের অবস্থান গোলমেলে করবেন না। রাজনীতি সচেতন হিসেবে আপনি এই মুহূর্তে দু’রকম অবস্থানের যেকোনো একটি অবস্থানে থাকতে পারেন,

১) আপনি যদি মনে করেন, বিজেপি নিজেদের স্বার্থে সিবিআইকে ব্যবহার করছে, তাহলে সিবিআইয়ের এই পদক্ষেপ সমর্থন করার অর্থ আদতে বিজেপির কৌশলকেই সমর্থন করা। ফলে আপনি সিবিআই-এর এই পদক্ষেপ কখনোই সমর্থন করতে পারেন না। অবশ্য বিজেপির সমর্থক হলে ভিন্ন কথা।

২) আপনি যদি মনে করেন, সিবিআই বিজেপির স্বার্থে নয়, সারদা বা অন্যান্য বিষয়ে মানুষকে ন্যায় পাইয়ে দিতেই সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করছে, তাহলে সিবিআই-এর এই পদক্ষেপ সমর্থনযযোগ্য।

শুধু এটুকুই উপলব্ধি করতে অনুরোধ করবো, ঠিক এই টাইম পিরিয়ডে সিবিআই-এর আগ্রাসন এবং বিজেপির কৌশল বিচ্ছিন্ন নয়। আপনি যদি এই টাইম পিরিয়ডে সিবিআই-এর আগ্রাসনের পক্ষে হোন, তাহলে আপনি চান অথবা না চান, আপনি বিজেপির কু-কৌশলেরই পক্ষে, তাদেরই অন্তর্গত। কারণ সিবিআই-এর সাম্প্রতিক আগ্রাসন বিজেপির কৌশলেরই একটি বড় হাতিয়ার।

(লিখেছেন বিশিষ্ট চিন্তাবিদ মোঃ জিম নাওয়াজ)

Leave a Reply

Your email address will not be published.