Breaking News
Home / উত্তর বঙ্গ / রাজ্যে প্রথম ও দেশে তৃতীয় হয়ে নজির সৃষ্টি করল মালদার ঊষা মার্টিন স্কুলের ছাত্রী সুমাইতা লাইসা

রাজ্যে প্রথম ও দেশে তৃতীয় হয়ে নজির সৃষ্টি করল মালদার ঊষা মার্টিন স্কুলের ছাত্রী সুমাইতা লাইসা

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: সিবিএসই ক্লাস ১০ পরীক্ষায় রাজ্যে প্রথম ও দেশে তৃতীয় হয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করল মালদার ঊষা মার্টিন স্কুলের ছাত্রী সুমাইতা লাইসা৷ গতকাল পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর, সুমাইতার এই ফলে উচ্ছ্বসিত মালদা সহ গোটা রাজ্যের মানুষ৷ 

মালদা শহরের মীরচকের বাসিন্দা সুমাইতা৷ তার বাবা তোহিদুল ইসলাম হলেন হোমিও চিকিৎসক৷ মা কোহিনুর খাতুন গৃহবধূ৷ ঊষা মার্টিন স্কুলে দ্বিতীয় শ্রেণিতে ভর্তি হয় সুমাইতা। সেখান থেকেই এবার সিবিএসই পরীক্ষায় বসে নজির সৃষ্টি করল সে।

৯৯.৫০ শতাংশ মার্কস পেলেও সুমাইতার কোনও স্থায়ী গৃহশিক্ষক ছিল না।

সুমাইতা জানায়, বরাবরই স্কুলে প্রথম হয় সে৷ তবে এত ভাল ফল সে প্রত্যাশা করে না৷ তার কোনও স্থায়ী গৃহশিক্ষক ছিল না৷ তবে বাবা-মায়ের সঙ্গে স্কুলের শিক্ষকরা তাকে যথেষ্ট সাহায্য করতেন৷ পড়ার জন্য তার নির্দিষ্ট কোনও সময়সীমা ছিল না৷ যখন ইচ্ছে করত তখনই সে পড়ত৷ সুমাইতা গল্পের বই পড়তে ভালোবাসে। তার কোনো ফেসবুক প্রোফাইল নেই।

সে অংকে ১০০, সোশ্যাল স্টাডিজে ১০০, ইংরেজিতে ৯৯, বাংলায় ৯৯, সায়েন্সে ৯৯ ও কম্পিউটার সায়েন্সে ১০০ পেয়েছে৷ ভবিষ্যতে বাবার মতোই চিকিৎসক হতে চায় সুমাইতা৷ এরপর আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটিতে পড়তে চায় সুমাইতা। 

ঊষা মার্টিন স্কুলের অধ্যক্ষ সাক্ষর চক্রবর্তী জানান, স্কুলের পক্ষ থেকে তাঁরা সুমাইতাকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন। সে স্কুলের নাম উজ্জ্বল করেছে৷ এই সাফল্যের কৃতিত্ব সম্পূর্ণ সুমাইতার৷ তাঁরা শুধু সুমাইতার পাশে থেকে সাহায্য করেছেন৷ সে বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী৷ শুধুমাত্র মার্কশিটে তা সঠিক ভাবে প্রকাশ করা যাবে না৷ তিনি সুমাইতার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করেন৷

সুমাইতার মা কোহিনুর খাতুন বলেন, “মেয়ের সাফল্যে আমরা ভীষণ খুশি৷ মেয়ে যে এত ভালো ফল করবে, তা আশাই করিনি। দেশের মধ্যে তৃতীয় ও রাজ্যে প্রথম হয়ে সে আমাদের মাথা অনেক উঁচু করে দিয়েছে৷ একজন গৃহবধূ হিসাবে যতটা পেরেছি মেয়ের পড়াশোনায় সাহায্য করেছি৷”

Check Also

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি