Breaking News
Home / ধর্ম / দেখা গেল শাওয়াল মাসের চাঁদ, আগামীকালই অনুষ্ঠিত হবে খুশির ঈদ

দেখা গেল শাওয়াল মাসের চাঁদ, আগামীকালই অনুষ্ঠিত হবে খুশির ঈদ

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: চাঁদ দেখা গেল আজ। আগামীকাল অনুষ্টিত হবে খুশির ঈদ। দীর্ঘ এক মাস রোজা পালন করার পর উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

ঈদ উৎসবকে কেন্দ্র করে বিকাল থেকেই অগণিত মানুষ শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার জন্য আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকেন। অবশেষে দেখা গেল খুশির চাঁদ! ফলে ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের দিন আনন্দ ভাগাভাগি করার জন্য একসঙ্গে নামাজ আদায় করতে সবাই শামিল হবেন ঈদগাহ ময়দানে।

তবে আজ সন্ধ‍্যায় আকাশে মেঘ থাকার কারণে দীর্ঘক্ষণ চাঁদ দেখার কোনো খবর পাওয়া যায়নি। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই ভারত সহ উপমহাদেশের মানুষ কিছুটা ধন্ধে ছিলেন ঈদ নিয়ে। অবশেষে দেখা মিলে সওয়ালের সরু খুশির বাঁকা চাঁদ। আগামী কালই ঈদ হচ্ছে ভারতীয় উপমহাদেশে।

যারা দীর্ঘ এক মাস রোজা রেখে না খেয়ে থাকার কষ্টকে অনুভব করেছেন, নামাজ, তারাবিহ, ইবাদত-বন্দেগি ও ইসলামের অনুশাসন পালন করেছেন, তাদের জন্য এই ঈদ হল উপহার। এই দিনটি বেশি বেশি আনন্দের উপভোগের, উচ্ছ্বাসের ও শান্তির। এই দিনটি মহান আল্লাহ-তলার তরফ থেকে বান্দাদেরকে দেওয়া একটা উপহার। 

পবিত্র কোরআনের বর্ণনা অনুসারে, দীর্ঘ এক মাস রোজা রাখার পর মুমিন বান্দার যখন নতুন পাজামা-পাঞ্জাবি পরে, দেহে আতর-খুশবু মেখে নামাজের উদ্দেশ্যে ঈদগাহে যান, তখন ফেরেশতারা তাদের সংবর্ধনা জানান। স্বর্গীয় সমস্ত বাণীতে মুমিন বান্দাদের অভিনন্দিত করা হয়। 

Check Also

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি