Breaking News
Home / কোলকাতা / দিদি ডাকলে আমি নরকেও যেতে পারি’: কাটমানি গান বিতর্ক উড়িয়ে নচিকেতা

দিদি ডাকলে আমি নরকেও যেতে পারি’: কাটমানি গান বিতর্ক উড়িয়ে নচিকেতা

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর অত্যান্ত কাছের লোক বলেই জানা যায়। তাঁর গান মাতিয়ে দেয় ২১শে জুলাইয়ের মঞ্চ। আর তিনিই কিনা আচমকা দূরত্ব বাড়াচ্ছেন রাজ্যের শাসক দলের সঙ্গে? কিছুদিন আগেই নচিকেতার ‘কাটমানি’ গান প্রকাশ হতেই সৃষ্টি হয় চরম জল্পনা। বিভিন্ন বিজেপি নেতারা গানটি নিজেদের টুইটারে শেয়ার করায় অনেকে আবার অন্য গন্ধ পান! তবে কি হাওয়া বুঝে এবার গেরুয়া পথে হাঁটা শুরু করলেন নচিকেতা? তবে আজ সব প্রশ্নের উত্তর নিজেই দিলেন দিদির প্রিয় নচিকেতা। তিনি বলেন, ‘দিদি ডাকলে আমি নরকেও যেতে পারি।’

‘খেয়েছেন যারা কাটমানি, দাদারা অথবা দিদিমণি’ এরকম কিছু তীব্র শ্লেষাত্বক শব্দ ব্যবহার করে এই গান তৈরি করেছিলেন নচিকেতা। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী যেভাবে কাটমানি নিয়ে দলের নেতাদের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, তাতে বার্তাটা শাসকদের জন্যই ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করছিলেন অনেকে। কিন্তু গানটিকে কেন্দ্র করে বিতর্ক শুরু হয় তৃণমূলের অন্দরেই তখনই সরাসরি ময়দানে নামেন নচিকেতা। নিজের ফেসবুক পেজে ওই গানটি পুনরায় শেয়ার করে তিনি লেখেন, ‘আমার এই গান ভারতবর্ষের সকল ভণ্ড রাজনীতিকদের উদ্দেশে।’ ফলে সমস্ত জল্পনার ইতি নিজেই ঘটালেন নচিকেতা।

Check Also

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি