Breaking News
Home / ধর্ম / তিরস্কার না করে ঘুরিয়ে সাধী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকেই সমর্থন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি: কি বললেন প্রধানমন্ত্রী? জানুন!

তিরস্কার না করে ঘুরিয়ে সাধী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকেই সমর্থন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি: কি বললেন প্রধানমন্ত্রী? জানুন!

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: মালেগাঁও সন্ত্রাসী হামলায় অভিযুক্ত ও ভোপাল লোকসভা আসন থেকে বিজেপির প্রার্থী সাধী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর শুক্রবার বলেছিলেন, সাবেক মুম্বাই এন্টি-সন্ত্রাস স্কোয়াড (এটিএস) প্রধান হেমন্ত কারকারেকে হত্যা করা হয়েছিল কারণ তিনি তাকে অভিশাপ দিয়েছিলেন। ২৬/১১ মুম্বাই হামলায় কারকারে সন্ত্রাসী হামলায় শহীদ হন। সেইসময় তিনি মালেগাঁও হামলার তদন্তে তিনি নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন।

নিউজ এজেন্সি এএনআই কর্তৃক প্রকাশিত একটি ভিডিওতে ঠাকুর বলছেন “আমি হেমন্ত কারকারেকে ডেকে বলেছিলাম, আমার বিরুদ্ধে প্রমাণ না পেলে, আমাকে যেতে দাও। (কারকারে) বলেছিলেন, সে প্রমাণ নিয়ে আসবে কিন্তু আমাকে ছাড়বে না। আমি তাকে বললাম – তুমি ধ্বংস হয়ে যাবে। আমি তাকে অভিশাপ দিয়েছিলাম। এর কিছুদিন পরেই সে সন্ত্রাসীদের আক্রমণে মারা যায়।”

সাধী প্রজ্ঞার এই বক্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখাদিয়েছে দেশ জুড়ে। বিরোধীরা তো বটেই, সাধারণ জনগণ থেকে বিজেপির কাছের লোকেরাও সাধী প্রজ্ঞার বিরুদ্ধে সেচ্চার হচ্ছেন। দেশের জন্য জীবন দেওয়া একজন বীর সন্তানকে কি করে সন্ত্রাসী হামলায় অভিযুক্ত একজন ব্যক্তি অপমান করতে পারে, সেই প্রশ্নই তুলছেন তারা।

ভোপালে এবার দিগ্বিজয় সিংয়ের বিরুদ্ধে সাধ্বী প্রজ্ঞাকেই প্রার্থী করেছে গেরুয়া শিবির। সাধ্বী প্রজ্ঞার বিরুদ্ধে মালেগাঁও বিস্ফোরণে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। যদিও সেই অভিযোগ এখনও প্রমাণিত হয়নি। তিনি এখন শারীরিক অসুস্থতায় জামিনে মুক্ত। কিন্ত বিজেপির বিরুদ্ধে উঠেছে ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতি করার পুরনো অভিযোগ।

এবার সাধিকাকে প্রার্থী করা নিয়ে এবার মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি সাধী প্রজ্ঞাকে দোষ না দিয়ে ঘুরিয়ে কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন গান্ধী পরিবারের উপর। প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ”সাধ্বী প্রাজ্ঞী মালেগাঁও বিস্ফোরণে জামিনে ছাড়া পেয়েছেন। সেটা বললে তো অমেঠি ও রায়বরেলির প্রার্থীরাও জামিনে বাইরে রয়েছেন।”

সাধ্বী প্রজ্ঞাকে ফাঁসিয়ে কংগ্রেস গেরুয়া সন্ত্রাসের ধুঁয়ো তুলতে চেয়েছিল, সেই ইঙ্গিতও দিয়েছেন মোদী। তাঁর কথায়, ”সাধিকার সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছিল। কংগ্রেসের অপরাধ মানসিকতা আমি জানি। সিনেমার যেভাবে চিত্রনাট্য লেখে সেভাবে কৌশল তৈরি করে কংগ্রেস। ভিলেন থাকে, নায়ক-নায়িকাও থাকে চিত্রনাট্যে। যতগুলি এনকাউন্টার হয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। এভাবেই অপপ্রচার চালায়। জাস্টিস লোহার স্বাভাবিক মৃত্যুকে হত্যা বলে দিয়েছিল। নোটবন্দি নিয়ে নাটক করেছে। ইভিএম নিয়ে লন্ডনে সাংবাদিক বৈঠক করেছে।”

সমঝোতা এক্সপ্রেস বিস্ফোরণকাণ্ডে অসীমানন্দ-সহ সব অভিযুক্তকে বেকসুর খালাস করা হয়েছে বলেও মনে করিয়ে দেন মোদী। তাঁর কথায়,”পাঁচ হাজার বছর ধরে মহান সংস্কৃতি। যে সংস্কৃতি বলেছে, বসুদৈব কুটুম্বকম। এমন সংস্কৃতিকে সন্ত্রাসবাদী বলে দিয়েছে।”

মোদীর হুঁশিয়ারি, সাধ্বী প্রজ্ঞাকে প্রার্থী করার অর্থ প্রতীকী। তাঁর কথায়,” ভোটে ভারী মূল্য চোকাতে হবে কংগ্রেসকে।”

প্রধানমন্ত্রীর আগে অমিত শাহও বলেছেন, গেরুয়া সন্ত্রাসবাদের কথা বলে হিন্দুদের কাঠগড়ায় তুলেছিল কংগ্রেস। সেই অপমানের জবাব দিতে প্রার্থী করা হয়েছে সাধ্বী প্রজ্ঞাকে।

Check Also

কোনো ধর্মীয় গ্রন্থ নয় প্রমাণ অনুন, রাম জন্মস্থান পুনর্জীবন কমিটির আইনজীবীকে প্রধান বিচারপতি

বাবরি মসজিদ

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!