Breaking News
Home / ভারত বর্ষ / জেনারেল ডিগ্রী পাঠ্যক্রমে আমূল পরিবর্তন, স্কুলের মতো কলেজেও চালু হতে চলেছে ইউনিট টেস্ট!

জেনারেল ডিগ্রী পাঠ্যক্রমে আমূল পরিবর্তন, স্কুলের মতো কলেজেও চালু হতে চলেছে ইউনিট টেস্ট!

বিশ্ব বার্তা: জেনারেল ডিগ্রী কোর্সের পাঠ্যক্রম আমূল পরিবর্তন হতে পারে। জেনারেল ডিগ্রী কোর্সের শিক্ষার্থীদের শিগগিরই প্রতিদিনের হোম অ্যাসাইনমেন্টগুলি সম্পন্ন করতে হবে এবং সেমিস্টারের শেষের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার পাশাপাশি প্রতিটি অধ্যায়ের পরে ইউনিট টেস্ট দেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে।

উচ্চশিক্ষা নিয়ন্ত্রক বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (UGC) নতুন মূল্যায়ন সংস্কারের নীতিমালা তৈরি করেছে যেখানে ধারাবাহিক পরীক্ষার উপর জোর দেওয়া হয়েছে। ফলে সেমিস্টার পরীক্ষার ওয়েটেজকে শতকরা ৭০ ভাগ থেকে কমিয়ে ৩০ শতাংশ করা হবে।

প্রস্তাবিত সিস্টেম, যা বিবেচনা করার জন্য কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে প্রচারিত হবে, যেখানে formative (70 per cent weightage) এবং summative (30 per cent weightage) দেওয়া হবে।

formative মূল্যায়নের মধ্যে প্রতিদিনের হোম অ্যাসাইনমেন্টগুলির মতো ক্রিয়াকলাপ অন্তর্ভুক্ত থাকবে যাতে স্বল্প-উত্তর-ধর্মী প্রশ্ন থাকবে। শিক্ষার্থীদের কুইজ এবং গ্রুপ ডিসকাশন, প্রবন্ধ, পোস্টার এবং ধারণার মানচিত্র এবং ল্যাব কার্যভারের দায়িত্ব গ্রহণের মতো ক্রিয়াকলাপগুলিতে অংশ নিতে হবে যার ভিত্তিতে তারা নম্বর পাবেন।

summative মূল্যায়ন প্রতিটি সেমিস্টারের শেষে লিখিত পরীক্ষা হিসাবে নেওয়া হবে। যেখানে multiple-choice এবং short-answer-type প্রশ্ন থাকবে।

ইউজিসির ভাইস-চেয়ারম্যান ভূষণ পটওয়ারধন জানিয়েছেন, প্রস্তাবিত পরিবর্তনগুলি পরীক্ষাকে একটি ধারাবাহিক বিষয় করে তুলবে।

পটওয়ারধন বলেন, “বর্তমান পাঠ্যক্রমে শিক্ষার্থীদের সঠিক জ্ঞান বিকশিত হচ্ছে না। এটা একটা মুখস্ত নির্ভর প্রক্রিয়া। প্রস্তাবিত ধারাবাহিক পাঠ্যক্রম এই সমস্যা দূর করবে।”

যদিও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী কাউন্সিলের সদস্য রাজেশ ঝা ইউজিসির এই প্রস্তাবকে সমর্থন করেন না। তিনি বলেন, multiple-choice এবং short-answer-type প্রশ্ন জ্ঞানের উৎকর্ষ বৃদ্ধি করে না। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয় নতুন পোস্ট না তৈরি করে ইউজিসির প্রস্তাবিত choice-based credit system পাঠ্যক্রম কার্যকর করার পরে শিক্ষকরা ইতিমধ্যে কাজের চাপে পড়েছেন। প্রতিদিন ভিত্তিতে মূল্যায়ন ও ইউনিট টেস্ট সেই বোঝা আরও বাড়িয়ে তুলবে এবং বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে এটি অপ্রয়োজনীয় করে তুলবে।

Check Also

দেশের মুখ বারবার মুখ উজ্জ্বল করবে বাঙালি, আবার NRC-তেও বাঙালি!

বিশ্ব বার্তা: এবছর অর্থনীতিতে নোবেল পেয়ে দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। অমর্ত্য সেনের …

অর্থনীতির হাত ধরে আবার বাঙালির বিশ্বজয়!

বিশ্ব বার্তা: আবার বাঙালির বিশ্বজয়। অমর্ত্য সেনের পর আবার অর্থনীতিতে নোবেল জয় বাঙালির। “বৈশ্বিক দারিদ্র্য …

গান্ধী কীভাবে আত্মহত্যা করেছিলেন, অবাক প্রশ্ন গুজরাটের একটি স্কুলে!

আহমেদাবাদ: আমরা সবাই জানি মহাত্মা গান্ধী কে হত্যা করা হয়েছিল। তাঁকে হত্যা করেছিল নাথুরাম গডসে। …

কি কারণে আত্মহত্যা করতে হল মেধাবী গণিতের গবেষককে? আছে কি সিএসসির গণিতের মেধা তালিকার কোনো সম্পর্ক!

বেলদা: গতকাল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের এক গবেষক ছাত্রের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃত …

এসএসসি: কমছে অ্যাকাডেমিক নম্বর, হতে পারে সেটের মত পরীক্ষা,চলছে আপারের অভিযোগ খতিয়ে দেখা!

কোলকাতা: দুর্নীতি নিয়ে বারে বারে অভিযোগ উঠছে এসএসসির বিরুদ্ধে। ফলে বিতর্ক বন্ধ করতে এবার নিয়োগ …

আপনি যতটা মনে করছেন তার থেকেও শোচনীয় অবস্থা ভারতের বর্তমান আর্থিক অবস্থার: রাজন

বিশ্ব বার্তা: বর্তমানে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে অনেক লেখা লিখি হচ্ছে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায়। রাজকোষের …

জিয়াগঞ্জ ও ফালাকাটার ঘটনার প্রতিবাদে ১৭ ই অক্টোবর, দুপুর ১২ টায় বিশাল প্রতিবাদ মিছিলের ডাক দিল শিক্ষক শিক্ষাকর্মী শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চ

বিশ্ব বার্তা: দশমীর দিন জিয়াগঞ্জের লেবুবাগানে নিজের বাড়িতেই শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পাল খুন হন তাঁর স্ত্রী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *