Breaking News
Home / পশ্চিমবঙ্গ / জীবন যুদ্ধে হার না মেনে, কঠিন পরিস্থিতি সামলে, জিরো থেকে হিরো বায়োটেকনোলজির ছাত্র প্রীতম

জীবন যুদ্ধে হার না মেনে, কঠিন পরিস্থিতি সামলে, জিরো থেকে হিরো বায়োটেকনোলজির ছাত্র প্রীতম

নিউজ ডেস্ক: সোদপুর নিবাসী বায়োটেকনোলজির ছাত্র প্রীতম দাস। পড়াশোনা, লেখালেখির পাশাপাশি তার বিভিন্ন বিষয়ে চর্চা করার অদ্ভুত শখ রয়েছে। 2014 সালে পল অক্টোপাসের অদ্ভুত কারনামায় সে আকর্ষিত হয়। সে ভাবে আচ্ছা কোন মানুষও যদি অন্য কোন ভাবে এমনই ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারতো। কিন্তু তারপরে সেভাবে কোন কাজ করা হয়ে ওঠেনি তার এই বিষয়ে। তারপর বেশ কিছু বছর কেটে যায়। সময়ের গ্যাড়াকলে তার জীবনে আসে একের পর এক বিভীষিকাময় সময়। প্রীতম সেইসময় মানসিক প্রবলভাবে ভেঙে পড়ে। সেই সময় প্রায়ই মনমরা হয়ে থাকতো। হঠাৎ সেই সময় প্রিতমের মাথায় সেই 2014 সালের স্মৃতি উস্কে আসে এবং তারপর নিজে থেকেই ভবিষ্যৎবাণীর উপরে কাজ করতে শুরু করে।

তবে যাত্রাটা এতটা সহজ ছিলনা। কিন্তু সাফল্য এসে ধরা দেয় 2018 ফুটবল বিশ্বকাপের সময় ও এবং সবথেকে বড় যে সাফল্য সেটা ছিল প্রথম 2018 সালে ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়, 2019 সালে ইংল্যান্ডের ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়, 2019 সালে ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপে উত্তর কোরিয়া জয়, অনূর্ধ্ব 19 বিশ্বকাপে বাংলাদেশের জয় সহ একাধিক ভবিষ্যৎবাণী মিলিয়ে দিয়েছিল। প্রীতম তার ইউটিউব চ্যানেলে বলেছিল, এবার অনূর্ধ্ব 19 বিশ্বকাপে নতুন কোন চ্যাম্পিয়ন পেতে পারে বিশ্ব ও সেই সঙ্গে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন হবার কথা বলেছিল সে।

প্রীতম রাজনৈতিক জগতে প্রেডিকশন করার কাজ শুরু করে কিন্তু রাজনৈতিক জগতে প্রেডিকশন এর ক্ষেত্রে ব্যর্থতার মুখ দেখতে হয়। কিন্তু সেখান থেকেও লড়াই করে একটা সময় সাফল্যের মুখ দেখে। 2019 সালের হেমন্ত সোরেন এর জয়ের কথা নিশ্চিত প্রেডিকশন জানিয়েছিল। প্রেডিকশন এর পাশাপাশি প্রীতম একটি নিউজ পোর্টালে সাংবাদিক। শুধু তাই নয় সেই নিউজ পোর্টাল থেকে প্রীতম নিজের চেষ্টায় নিজে থেকে যোগাযোগ করে বরেণ্য ব্যক্তিদের ইন্টারভিউ নিয়েছে। সে এখনও অব্দি বিধানসভার মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ মহাশয়, কলকাতা ওলা উবের অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ইন্দ্রজিৎ ঘোষ মহাশয়, মুকুল পুত্র মাননীয় শুভ্রাংশু রায় ও অভিনেতা বাদশা মৈত্র, সুজন চক্রবর্তী, বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য, অর্জুন সিং, রাহুল সিনহা, জয়প্রকাশ মজুমদার, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সহ একাধিক জনের ইন্টারভিউ নিয়েছে। না প্রীতম কোন জার্নালিজম স্টুডেন্ট নয় কিন্তু তা সত্ত্বেও প্রিতমের লেখা, খবর উপস্থাপন করার দক্ষতা দেখলে আপাতদৃষ্টিতে কেউ বুঝতেই পারবে না যে এটা একজন এমন মানুষের লেখা। কিন্তু প্রিতমের কাজের সাথে এতটা সম্পৃক্ত হওয়ার কারণটা কি?

প্রীতম জানায়, জীবনের সেই সময় বা পর্বগুলো আমি জীবনে হয়তো কোনদিন ভুলতে পারবো না। সহপাঠীদের দুর্ব্যবহার ও অসময়ের জাতাকলে সেই সময় আমি পিষে যাচ্ছিলাম। আমার সাথে তেমন কেউ ভালোভাবে কথা বলতো না। একটা সময় নিজেকে খুবই হীনমন্য ও দুর্বল মনে হত। আমার মনে আছে আমি বাড়িতে একা ঘরে চুপচাপ বসে থাকতাম আর তখনই একটা সময় নিজের মনের মধ্যে একটা কথা এসেছিল যে আমি এদের সবার থেকে একজনের থেকে আলাদা হয়ে দেখাবো। আলাদা হতে পেরেছি কিনা জানিনা কিন্তু সেদিনকার মনের মধ্যে আসা কথাটা কোথাও একটা প্রবল জেদের জন্ম দিয়েছিল। আমি একদিন সমাজের প্রতিষ্ঠিত বড় বড় মানুষদের সাথে পরিচয় করবো তাদের সাথে কথা বলব কারণ আমার মনে হতো তারা বিচক্ষণ ব্যক্তি তারা নিশ্চয়ই আমার সহপাঠীদের মত আমার সাথে দুর্ব্যবহার করবেনা বিনা কারণে। প্রমাদ গুনতাম বসে বসে নিশ্চয়ই কোনদিন আসবে সুদিন! কিন্তু জীবনযাত্রা কঠিন থেকে কঠিনতর হয়ে উঠছিল ক্রমশঃ। একটা সময় মনে হলো যে আমাকে এর মধ্যে থেকে কিছু একটা করার চেষ্টা করতে হবে। তারপর আকস্মিকভাবে একদিন পোর্টালের সুযোগটা আসে সেখানে জয়েন করি। প্রীতম জানায় জীবনের এমন কোন কদম নেই যেখানে আমি হারের মুখ দেখিনি। প্রীতম এসবের পাশাপাশি কবিতা, ধারাবাহিক গল্প লেখে। কিন্তু জীবনের প্রতিটা অপমান, ধাক্কার সাথে লড়াই করে এতটা দূর যাত্রা করে এসেছে।

Check Also

২৫% হারে পেনশন বাড়ছে রাজ্যের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের, জারি বিজ্ঞপ্তি!

নিউজ ডেস্ক: আগেই রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে পেনশন বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। এবার …

প্রয়াত যাদবপুরের প্রাক্তন সাংসদ ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নেতাজী পরিবারের সদস্যা শ্রীমতি কৃষ্ণা বসু

নিউজ ডেস্ক: চলে গেলেন প্রাক্তন যাদবপুরের প্রাক্তন সাংসদ ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নেতাজী পরিবারের সদস্যা শ্রীমতি …

অবশেষে সংশোধিত পেনশন সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি রাজ্যের, বড় স্বস্তি অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের

নিউজ ডেস্ক: আগেই রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে পেনশন বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। এবার …

ডিএ শূণ্য, বাড়ির ভাড়ার অনুদান ১৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১২ শতাংশ, বাড়ছে ক্ষোভ, মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি কর্মচারী সংগঠনের

নিউজ ডেস্ক: বর্তমানে ডিএ শূণ্য। ডিএ বৃদ্ধির ব্যাপারে কোনও হেলদোল নেই রাজ্যের। ষষ্ঠ বেতন কমিশন …

‘কেউ যদি আধঘণ্টার মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্ন আউট করে দেয়, তবে আমি কী করব’: শিক্ষামন্ত্রী

‘নিউজ ডেস্ক: ২০১৯ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসই নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছিল। সাতদিনই পরীক্ষা শুরু কিছুক্ষণের মধ্যেই …

এসএসকে-এমএসকে শিক্ষাকেন্দ্রগুলি নিয়ে সরকারের বিশেষ কোনও পরিকল্পনা নেই: শিক্ষামন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: রাজ্যের শিশু ও মাধ্যমিক শিক্ষাকেন্দ্রগুলি (এসএসকে-এমএসকে) নিয়ে সরকারের এই মুহূর্তে বিশেষ কোনও পরিকল্পনা …

‘স্কুলগুলিতে শিক্ষকের অভাব নেই, আমরা এক লক্ষ শিক্ষক নিয়োগ করেছি’: শিক্ষামন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: রাজ্যের স্কুলগুলিতে শিক্ষকের অভাব নেই, তবে বহু জায়গায় এর সঠিক বিন্যাস নেই। সোমবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.