Breaking News
Home / পশ্চিমবঙ্গ / কলেজে সহকারী অধ্যপক থেকে সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক হওয়া যায়, স্কুলে শুধুই সহকারী, উঠছে যোগ্যতার ভিত্তিতে প্রমোশনের ব্যবস্থার দাবি

কলেজে সহকারী অধ্যপক থেকে সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক হওয়া যায়, স্কুলে শুধুই সহকারী, উঠছে যোগ্যতার ভিত্তিতে প্রমোশনের ব্যবস্থার দাবি

নিউজ ডেস্ক: শিক্ষিক শিক্ষিকাদের পাশাপাশি যাঁদের অবদান কোনো ভাবেই অস্বীকার করা যায় না তাঁরা হলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষাকর্মী বৃন্দ। সমস্ত কিছুর আড়ালে থেকে নীরবে কাজ করে যান এই মানুষগুলি। অথচ যথাযথ সম্মান পান না এঁরা। শিক্ষক হিসাবে এঁদের কথা যদি আমরা ভুলে যাই তাহলে তা অত্যন্ত অমানবিক হবে।

শুধু সম্মান নয়, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির বাজারে অশিক্ষক কর্মীদের আর্থিক দিক দিয়ে ভীষণ ভাবে বঞ্চিত করে রাখা হয়েছে। আমরা মনে করি তাঁদের যে স্কেল দেওয়া হয় তা এই দুর্মূল্যের বাজারে অত্যন্ত কম। আমাদের দাবি তাঁদের গ্রড পে বৃদ্ধি করে নতুন পে কমিশনে আরো একটু আর্থিক সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করা হোক। প্রাথমিক এবং গ্রাজুয়েট শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধির সাথে সামঞ্জস্য রেখে গ্রুপ ডি, করণিক, লাইব্রেরীয়ানদেরও আর্থিক সুযোগ বৃদ্ধি করা হোক। শিক্ষাকর্মীদের অনেকেরই শিক্ষাগত যোগ্যতা অনেক বেশি। এমনকি কোনো কোনো ক্ষেত্রে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সমতুল্য শিক্ষাগত কোয়ালিফিকেশন রয়েছে তাঁদের। আমাদের দাবি তাঁদের উপযুক্ত পরীক্ষার ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুযায়ী প্রমোশনের ব্যবস্থা করা হোক।

কলেজের শিক্ষকদের ক্ষেত্রে প্রোমোশনের ব্যবস্থা আছে। সেখানে সহকারী অধ্যপক থেকে সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক হওয়া যায়। কিন্তু স্কুল শিক্ষকদের এমন কোনো ব্যবস্থা নেই। কেবল কলেজ নয়, বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রোমোশনের সুযোগ আছে, কিন্তু স্কুল শিক্ষকদের ক্ষেত্রে এমন কোনো ব্যবস্থা নেই। ফলে অবিলম্বে এগুলো চালু হোক।

রোপা সংশোধনীতে শিক্ষাকর্মীদের গ্রেড পে বৃদ্ধি করে আর্থিক সুযোগ এবং পরীক্ষার ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুযায়ী প্রমোশনের ব্যবস্থা রাখা হোক শিক্ষকদের। দাবি তুলছে শিক্ষক শিক্ষাকর্মী শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চ।

Check Also

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভাতেও পাশ হতে চলেছে নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব, বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

নিউজ ডেস্ক: এর আগে কেরল ও পঞ্জাব বিধানসভায় পাস হয়েছে। এবার পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভাতেও পাশ হতে …

গতবারের থেকে অনেকটাই বাড়ল সেট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা, পরীক্ষা হল নির্বিঘ্নেই

নিউজ ডেস্ক: গতকাল সম্পন্ন হল স্টেট এলিজিবল টেস্ট বা সেট পরীক্ষা। এবারে একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ল …

রোপা ২০১৯: অপশন ফর্ম, ফিক্সেশন ও স্যালারি বিল জমা করার গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশিকা

নিউজ ডেস্ক: রাজ্যের শিক্ষকদের চলতি বছরের জানুয়ারি থেকেই নতুন বেতনক্রম হারে মাইনে পেতে হলে পূরণ …

বড় ধাক্কা খেল মাদ্রসা কমিটি, শিক্ষক নিয়োগ হবে সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমেই

নিউজ ডেস্ক: মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনকে চ্যালেঞ্জ করতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টে বড় ধাক্কা খেল কাঁথি হাই …

ডিআই অফিসে তুলে দেওয়া হল শিক্ষকের টিউশন করার ভিডিও, ব্যবস্থা না নিলে চরম আন্দোলনের হুঁশিয়ারি!

নিউজ ডেস্ক: স্কুল শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশন বন্ধ করার দাবিতে এবং যাঁরা বেআইনি ভাবে পড়াচ্ছেন তাঁদের …

খাদ্য সুরক্ষাকার্ডে বাবার নাম উল্লেখ করা হয়েছে KKR NIGHT RIDERS, কোথাও বা বাল ব্রহ্মচারী, ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা

নিউজ ডেস্ক: এর আগে পদবি, বয়স এসবের গোলমাল তো হতই৷ ভুল দেখা যেত ঠিকানাতেও৷ কিন্তু …

সন্ধান চাই: আপনার একটি শেয়ারে মেয়েটিকে খুঁজে পেতে পারে পরিবার!

নিউজ ডেস্ক: কলেজে গিয়েছিল মেয়েটি। তারপর থেকে আর বাড়ি ফেরেনি। গত তিনদিন ধরে নিখোঁজ। বাবা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.