Breaking News
Home / পশ্চিমবঙ্গ / করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর রিলিফ ফান্ডে সাহায্যের আবেদন শিক্ষকদের

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর রিলিফ ফান্ডে সাহায্যের আবেদন শিক্ষকদের

নিউজ ডেস্ক: ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বেই আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করেছে। আমাদের রাজ্যও তার ব্যতিক্রম নয়। ইতিমধ্যেই রাজ্যে করোনার কারণে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন দশজন। রাজ্য ও কেন্দ্রের তরফে লকডাউনের ঘোষণা আগেই হয়েছে।

প্রশাসনের তরফ থেকেও একগুচ্ছ সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। দিনমজুর দিন আনে দিন খায় রাজ্যবাসীর সাহায্যার্থে এবং করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী পশ্চিমবঙ্গ জরুরি ভিত্তিক রিলিফ ফান্ড তৈরি করেছেন। রাজ্যবাসীর কাছে সেই ত্রানে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আবেদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় রাজ্যের ত্রাণ তহবিলে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী-শিক্ষানুরাগী ঐক্যমঞ্চ।

শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী-শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক কিংকর অধিকারীর বক্তব্য,

এই মুহূর্তে সারা বিশ্বের সাথে আমাদের দেশ, আমাদের রাজ্যের মানুষ চরম বিপর্যয়ের সম্মুখীন। স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে সারা দেশ, সারা রাজ্য। শেষটা কোন্ দিকে এগোবে আমরা কেউ জানিনা। দেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এব্যাপারে সক্রিয় ভূমিকা গ্রহণ করে চলেছেন।আশা করি আমরা দ্রুত এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির হাত থেকে রক্ষা পাবো। ইতিমধ্যেই ১৫ ই এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। দীর্ঘদিন এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে দেশের একেবারে সাধারণ মানুষ যারা দিন আনে দিন খায় এবং অসংগঠিত ক্ষেত্রের অসংখ্য মানুষ চরম বিপর্যয়ের মুখে পড়বে। এই অবস্থায় যাঁদের সামর্থ্য রয়েছে, একটু বেশি সচ্ছল তাঁরা যদি বিভিন্নভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিই তাহলে এই মুহূর্তে এই মানুষগুলো ন্যূনতম প্রয়োজনের ভিত্তিতে নিজেদের বাঁচিয়ে রাখতে পারবে। এই মুহূর্তে আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী এই মানুষগুলোর পাশে দাঁড়ানো আমাদের একান্ত কর্তব্য বলে মনে করি।

আমাদের আবেদন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যের মানুষের কাছে এবং শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষক শিক্ষিকা শিক্ষাকর্মীদের কাছে সাহায্যের জন্য যে মানবিক আবেদন জানিয়েছেন এই মানবিক আবেদনে সামর্থ্য অনুযায়ী যে যার মতো করে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। এছাড়াও পাশাপাশি অসহায় মানুষ থাকলে তাদের জন্যও আমরা যাতে মানবিক মুখ নিয়ে দাঁড়াতে পারি তার জন্য আবেদন রাখছি। আসুন, আমরা এই মুহূর্তে যে যেভাবে পারি এই পরিস্থিতিতে মানুষ হয়ে মানুষের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিই। সাথে সাথে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য বিজ্ঞানসম্মতভাবে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বারবার অনুরোধ করা হচ্ছে সেগুলো আমরা যেন সবাই মেনে চলি এবং অন্যদের মেনে চলার জন্য অনুরোধ করি।

ধন্যবাদান্তে

—কিংকর অধিকারী, রাজ্য সম্পাদক,
শিক্ষক শিক্ষাকর্মী শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চ
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটি।

মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলের তালিকা নিম্নে দেওয়া হল-
Account Name -West Bengal State Emergency Relief Fund
A/c No: 628005501339,
IFSC Code: ICIC0006280,
MICR Code: 700229010
তারিখ – ২৬/০৩/২০২০

Check Also

করোনার কোপে বন্ধ শিক্ষকদের বদলি প্রক্রিয়া, থমকে অতিথি অধ্যাপকদের ডক্যুমেন্ট ভেরিফিকেশন, চিন্তায় শিক্ষকরা!

নিউজ ডেস্ক: করোনা সংক্রমণের আগে রাজ্যে বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছিল সরকার। চাকরিরত শিক্ষকদের নিজ নিজ …

আদৌ কি এ বছরের মধ্যে সম্পন্ন হবে এসএসসির নিয়োগ প্রক্রিয়া? চিন্তায় হবু শিক্ষকরা!

নিউজ ডেস্ক: করোনার জেরে গোটা বিশ্বেরই অর্থনীতির বেহাল দশা। দেশের আর্থিক অবস্থাও ভালো নয়। দেশজুড়ে …

প্রত্যেক দেশবাসীকে অন্তত একশো টাকা করে অনুদান হিসেবে দান করার আর্জি জানালেন আশা ভোঁসলে

নিউজ ডেস্ক: করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সিনেজগতের নামজাদা তারকারা ইতিমধ্যেই তাদের সামর্থ অনুযায়ী অর্থের অনুদান করেছেন …

লকডাউন পরিস্থিতিতে অসহায় দুঃস্থ পরিবারের হাতে খাদ্যদ্রব্য সামগ্রী তুলে দিল হেল্প কেয়ার সোসাইটি

নিউজ ডেস্ক: লকডাউন পরিস্থিতিতে অসহায় দুঃস্থ পরিবারের হাতে খাদ্যদ্রব্য সামগ্রী তুলে দিল নদীয়া জেলার হাঁসখালী …

লকডাউনের ফলে চরম বিপাকে গৃহশিক্ষকরা, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন পেশ!

নিউজ ডেস্ক: সাম্প্রতিক মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমনে বিপর্যস্ত দেশ থেকে বিদেশের মানুষ ও অর্থনীতি। প্রভাব …

আজ থেকেই শুরু হচ্ছে ভার্চুয়াল ক্লাস, রুটিন নিয়ে উঠছে প্রশ্ন!

নিউজ ডেস্ক: আজ, মঙ্গলবার থেকেই শুরু হচ্ছে ভার্চুয়াল ক্লাস। চলবে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত। বেলা ৩টে …

মুখ্যমন্ত্রীর আপদকালীন রিলিফ ফান্ডে‌ ১,০০,০০০ টাকা অনুদান বর্ধমান ফুডিস ক্লাবের

বর্ধমান: প্রায় ২৫০০ এরও বেশি পরিবারকে রেশন বিলি করা, প্রতিদিন প্রায় ১০০০ করে রুটি বিতরণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.