Breaking News
Home / কোলকাতা / এসএসসির হুব শিক্ষকদের করুন আর্তি ও সহযোগীতার আবেদন

এসএসসির হুব শিক্ষকদের করুন আর্তি ও সহযোগীতার আবেদন

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: আমরা এমএ, বিএড, বিপিএড সম্পন্ন করা নবম-দ্বাদশ ও ওয়ার্ক-ফিজিক্যাল স্তরের শিক্ষক পদপ্রার্থী। স্কুল সার্ভিস কমিশন মারফত প্রকাশিত ফাইনাল মেরিট প্যানেলে আমাদের নাম থাকা সত্ত্বেও কমিশনের নিয়ম ভঙ্গ করার জন্য (গেজেট না মানা) আমরা আজ চাকরি থেকে বঞ্চিত। এই বঞ্চনা থেকে মুক্তি পেতে আমারা এসএসসি যুবছাত্র অধিকার মঞ্চের ব্যানারে (অরাজনৈতিক মঞ্চ) ধর্মতলা মেয় রোডে প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন সত্যাগ্রহ পালন করছি। ইতি মধ্যে একজন সন্তান সম্ভভা মাতার গর্ভের সন্তানের মৃত্যু ঘটেছে, ১৬ দিনে ৫০ জন অসুস্থ হয়েছে, ডেঙ্গু তে আক্রান্ত হয়েছে ১ জন। মাথা গোজার জায়গা নেই, টইলেট নেই। শুধু ন্যায্য অধিকারের দাবি নিয়ে ঠিক আপনাদের পরিবারের সন্তান দের মতো অল্প বয়স্কো কিছু ছেলে মেয়ে মৃত্যুর সাথে লড়াই করছে। এই আন্দোলন শুধু শিক্ষক নিয়োগের আন্দোলন নয়, শিক্ষার আন্দোলন.. যার সাথে জুড়ে আছে আপনার সমাজ, দেশ ও প্রজন্মের ভবিষ্যৎ। তাই এই আন্দোলনে আপনাদের সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করছি।

অনেকেই বলেন ওয়েটিং লিস্ট থেকে কি সবাই চাকরি পাই? সাধারণ ভাবে দেখলে উত্তর হবে না। তখনই প্রশ্ন আসে, তাহলে অনশন কেন? এর উত্তর পেতে হলে আপনাকে আরো গভীরে ভাবতে হবে।

এর আগে প্রতি বছর এসএসসির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হত। কিন্তু এখন আদৌ পরিবর্তী বিজ্ঞাপন কবে হবে তা কেও জানে না। এসএসসি পরীক্ষা নিয়মিত না হওয়ায় হবু শিক্ষকদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। ভবিষ্যতে এই জায়গায় তারা পৌঁছাতে পারবে কিনা সেই প্রশ্ন তাদের মনে তাড়া করে বেড়াচ্ছে। কারণ প্রতিবছর যদি এস এস সি নিয়মিতভাবে হতো তাহলে ওয়েটিংরা এভাবে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ আন্দোলন গড়ে না তুলে পরবর্তী পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিত। একবার পরীক্ষা হওয়ার পর পাঁচ, সাত বছর পেরিয়ে যাচ্ছে, ফলে এস এস সি কে ঘিরে ঘোর অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। সঙ্গে আছে পরিবারের চাপ, সমাজের উপহাস এবং বয়স বৃদ্ধি। এই আতঙ্ক থেকেই তারা জীবন-মৃত্যুর খেলায় নামতে বাধ্য হয়েছে। আজ তাই এর দায় সরকারকে নিতেই হবে।

একদিকে স্কুলগুলো শিক্ষকের অভাবে ধুঁকছে, পঠন পাঠন বিশাল ভাবে ব্যাহত হচ্ছে, অন্যদিকে উচ্চ-শিক্ষিত হয়েও বেকার থেকে যেতে হচ্ছে। আন্দোলনকারীদের দাবি অবিলম্বে আপ টু ডেট ভ‍্যাকেন্সিতে শিক্ষক নেওয়া হোক। আপ টু ডেট শূন্যপদে লোক নিলে আর ওয়েটিং ক্যান্ডিডেটদের আর বসে থাকতে হবে না। এর সঙ্গে আছে স্বজন পোষণ এবং টাকার খেলা ফলে অনেক যোগ্য লোকেরা পিছিয়ে পড়ছে আর অযোগ্য লোকেরা ঘুর পথে চাকরি পেয়ে যাচ্ছে। এসএসসির মেরিট লিস্টেও হচ্ছে অনিয়ম। কে আগে, কে পরে, কে কত নাম্বার পেয়েছে নেই তার কোনো উল্লেখ। ফলে এই অসহ্য, অসহনীয়, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, মাথার উপর ছাউনিহীন অবস্থায় অনশন করতে বাধ্য হচ্ছে হুব শিক্ষকেরা।

Check Also

প্রত্যেক দেশবাসীকে অন্তত একশো টাকা করে অনুদান হিসেবে দান করার আর্জি জানালেন আশা ভোঁসলে

নিউজ ডেস্ক: করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সিনেজগতের নামজাদা তারকারা ইতিমধ্যেই তাদের সামর্থ অনুযায়ী অর্থের অনুদান করেছেন …

লকডাউন পরিস্থিতিতে অসহায় দুঃস্থ পরিবারের হাতে খাদ্যদ্রব্য সামগ্রী তুলে দিল হেল্প কেয়ার সোসাইটি

নিউজ ডেস্ক: লকডাউন পরিস্থিতিতে অসহায় দুঃস্থ পরিবারের হাতে খাদ্যদ্রব্য সামগ্রী তুলে দিল নদীয়া জেলার হাঁসখালী …

লকডাউনের ফলে চরম বিপাকে গৃহশিক্ষকরা, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন পেশ!

নিউজ ডেস্ক: সাম্প্রতিক মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমনে বিপর্যস্ত দেশ থেকে বিদেশের মানুষ ও অর্থনীতি। প্রভাব …

মুখ্যমন্ত্রীর আপদকালীন রিলিফ ফান্ডে‌ ১,০০,০০০ টাকা অনুদান বর্ধমান ফুডিস ক্লাবের

বর্ধমান: প্রায় ২৫০০ এরও বেশি পরিবারকে রেশন বিলি করা, প্রতিদিন প্রায় ১০০০ করে রুটি বিতরণ …

মুখ্যমন্ত্রীর আপদকালীন রিলিফ ফান্ডে‌ ৩,৫৪,৪৭১ টাকা অনুদান বর্ধমানের বিভিন্ন ক্লাব ও সংস্থার

নিউজ ডেস্ক: ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বেই আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করেছে। আমাদের রাজ্যও তার ব্যতিক্রম …

ভারতে কাজ হারাবে ১৪ কোটি, স্বাধীনতার পর দেশের সবচেয়ে বড় সংকট: রাজন

নিউজ ডেস্ক: করোনার জেরে গোটা বিশ্বেরই অর্থনীতির বেহাল দশা। দেশের আর্থিক অবস্থাও ভালো নয়। এবার …

আদৌ কি পুজোর আগে সম্ভব হবে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ? উঠছে প্রশ্ন!

নিউজ ডেস্ক: করোনার জেরে গোটা বিশ্বেরই অর্থনীতির বেহাল দশা। দেশের আর্থিক অবস্থাও ভালো নয়। কঠিন …