Breaking News
Home / চাকরির খবর / একটি ভালো রিসার্চ পেপার লেখার জন্য আপনি কোন কোন স্টেপ ফলো করবেন? অবশ্যই জানুন!

একটি ভালো রিসার্চ পেপার লেখার জন্য আপনি কোন কোন স্টেপ ফলো করবেন? অবশ্যই জানুন!

বিশ্ব বার্তা নিউজ পোর্টাল: যারা ইতিমধ্যেই গবেষণা শেষ করে ফেলেছেন বা শেষ করার পথে তারা একটি ভাল গবেষণা পত্র কিভাবে লিখবেন, সেটা অবশ্যই জানেন। কিন্তু সমস্যা হল নতুন দেরকে নিয়ে, যারা গবেষনায় ঢুকবেন বা ঢোকার চেষ্টা করছেন। আজ আমরা জানব, একটি ভালো গবেষণা পত্র লেখার জন্য কি কি স্টেপ আপনি ফলো করবেন। কোনো পেপার লিখতে গেলে প্রথমেই মাথাতেই প্রশ্ন আসে ফরম্যাটিং কিভাবে করবো, রেফারেন্স কিভাবে দেব, কি কি সেকশন রাখবো, ফুটনোট কিভাবে আসবে ইত্যাদি। জার্নাল ভেদে গবেষণা পত্রের ফরম্যাটিং-এ কিছু কিছু পরিবর্তন হয়, তবে মূল কাঠামো সব জাগাতে একই থাকে।

গবেষণা পত্র লেখার প্রথমেই একটি আউট লাইন তৈরি করুন। যেমনঃ ১. টাইটেল ২. এবস্ট্রাক্ট ৩. কী-ওয়ার্ড ৪. ইন্ট্রোডাকশন ৫. বিষয় ভিত্তিক আলোচনা ৬. রেজাল্ট ও ডিস্কাশন ৭. একনলেজমেন্ট ৮. কনক্লুশন এবং ৯. রেফারেন্স। এরপর এই কাঠামো ধরে ধরে লিখতে থাকুন।

১.টাইটেল: জার্নাল পেপারের টাইটেল বা শিরোনাম দেওয়া একটা গুরুত্বপূর্ণ কাজ। গবেষণা পত্রটি মূলত কি নিয়ে, সেটার উপরে বা কিছু স্পেসিফিক কি-ওয়ার্ড জুড়ে দিয়ে সুন্দর-সংক্ষিপ্ত কিন্তু বিশ্লেষনাত্মক একটি প্রাসঙ্গিক শিরোনাম ঠিক করবেন। টাইটেলের নিচে অথর লিস্টে শিক্ষার্থীর নাম, সুপারভাইজারের নাম ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ন অবদান যারা রেখেছেন তাদের নাম রাখতে হবে। এফিলিয়েশনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা এবং অথরদের ইমেইল আইডি এবং এড্রেস দিতে হবে।
2. এবস্ট্রাক্ট: এবস্ট্রাক্ট বা সারমর্ম হল মূল গবেষণার সংক্ষিপ্ত সার। সাধারনত ৫০০ বা তার কম শব্দের মদ্ধ্যেই পুরো সারমর্ম লিখতে হয়। জার্নালের গাইড লাইন অনুযায়ী, অবশ্যই আপনার পেপারের গুরুত্ব অনুসারে কিছু ভুমিকা দিতে হবে। এরপরে খুব সংক্ষেপে পেপারে মূল কি বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে, কি কি মেথড ব্যবহার হয়েছে তার উল্লেখ করতে হবে। রেসাল্ট-ডিস্কাশনের কিছু অংশও এখানে যুক্ত করা যেতে পারে।
3. কী-ওয়ার্ড: ৫/৬ টি শব্দ নির্বাচনের মাধ্যমে আপনার লেখাটির মূল বিষয় পরিস্কার করে ফেলতে হবে। বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক টার্ম, প্যামিটারেরগুলোর নাম কীওয়ার্ড হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন। টাইটেল থেকেও কিছু মূল শব্দ এখানে লিখতে পারেন।
4. ইন্ট্রোডাকশন: ইন্ট্রোডাকশন হল রিসার্চ পেপারের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ইন্ট্রোডাকশনে সাম্প্রতিক রেফারেন্স যুক্ত আপনার গবেষণা রিলেটেড কিছু কাজ উল্লেখ করতে হবে, বিশেষ করে যেই জার্নালে পাঠাবেন- সেই জার্নালে প্রকাশিত কিছু পেপার অবশ্যই যুক্ত করবেন। এই অংশে লেখার স্কোপ, তাতপর্য, গুরুত্ব, উদ্দেশ্য, আপনার পেপারের মূল আলোচ্য সমস্যার বর্নণা করতে হবে।
৫. বিষয় ভিত্তিক আলোচনা: এই অংশটি রিসার্চ পেপারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আপনার রিসার্চ পেপারের রেজাল্টের প্যারামিটারগুলো এখানে বর্ননা করতে হবে। যেসব ইকুপমেন্ট-যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয়েছে তার পরিচিতি ও বর্ননা এখানে দিতে হবে। আপনার রিসার্চ পেপারে যে মেথডলজি ব্যবহার করেছেন, সেটা এখানে উল্লেখ করতে হবে।
৬. রেজাল্ট ও ডিস্কাশন: এই সেকশনে গ্রাফ ও টেবিল রাখতে হবে। আপনি যে মেথডলজি ব্যাবহার করেছেন, তার বাস্তব রেজাল্ট এখানে উল্লেখ করতে হবে। প্রতিটি টেবিল ও গ্রাফের/চার্টের বর্ননা পাশাপাশি রাখতে হবে। ডিস্কাশনে প্রাসঙ্গিক কিছু পেপারের রেজাল্টের সাথে প্রদত্ত পেপারের রেজাল্টের তুলনা রাখলে ভালো হয়।
৭. কনক্লুশন: রেজাল্ট সেকশনে প্রাপ্ত গুরুত্বপূর্ন তথ্য এইখানে পয়েন্ট আকারে লিখতে হবে। অবশ্যই কিছু নিউমেরিক্যাল রেজাল্ট থাকতে হবে, শুধু তুলনামূলক আলোচনা থাকলে চলবে না। আপনার পেপারের কি কি সীমাবদ্ধতা আছে তা এখানে উল্লেখ করবেন। এছাড়া এই পেপারের মেথডলজি ব্যাবহার করে ভবিষ্যতে কি কি কাজ করা যেতে পারে তা অবশ্যই উল্লেখ করবেন।
৮. একনলেজমেন্ট: আপনার ল্যাব এসিস্টেন্ট, সহকারী, পরামর্শদাতা, আর্থিক সাহায্যকারী প্রতিষ্ঠান, বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম এই সমস্ত কিছুই এই অংশে উল্লেখ করবেন।
৯. রেফারেন্স: এটি পেপারের একবারে শেষে উল্লেখ করতে হবে। রেফারেন্স লেখার অনেক পদ্ধতি আছে। আপনি যে জার্নালে পাঠাবেন, সেখানে কোন পদ্ধতিতে লিখতে বলছে সেটা ফলো করুন। যেমনঃ হার্ভার্ড, নাম্বারিং সিস্টেম। রেফারেন্স সাজানোর অনেক সফটওয়ার আছে, যেমনঃ END NOTE(http://www.endnote.com/ ), ProCite (http://www.procite.com/ ) ইত্যাদি।

Check Also

সাজানো ভণ্ডামি, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের সঙ্গে আপনি বর্বরতা করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে মুকুল রায়

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের শাসকদল জোর দিয়েছে জন সংযোগ কর্মসূচি। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে দিদিকে বলো কর্মসূচি। এই কর্মসূচি উপলক্ষেই গত বুধবার দিঘার দত্তপুরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে দীঘর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। এরপর বাড়ি বাড়ি ঢুকে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শোনেন তিনি। যেতে যেতেই রাস্তার পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে নিজে হাতে চা বানান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর তা পরিবেশনও করেন। এই ঘটনাকে জীবনের ছোটো ছোটো আনন্দদায়ক মুহূর্ত হিসাবেই অভিহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পদোন্নতির মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়া হলে, আদৌ কি যোগ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষক হতে পারবেন? উঠছে প্রশ্ন!

এসএসসির মাধ্যমে সহ শিক্ষক নিয়োগে বারে বারে উঠেছে অভিযোগ। কখনো বা এনসিটির রুলস না মানা আবার কখনো বা যোগ্য প্রার্থীকে বাদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীকে মেধা তালিকায় জায়গা করে দেওয়া। শুধুই যে সহ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এমন অভিযোগ আছে তা নয়, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। এসএসসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছেও প্রচুর। ফলে রাজ্যের স্কুল গুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বারেবারে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত: বিজেপির শরিক নেতা

এক দেশ, এক পরিবার, এক সন্তান, আইন করে চালু করা উচিত

দীঘায় চলবে সি প্লেন, তৈরি হবে পুরীর মত জগন্নাথ দেবের মন্দির: মমতা ব্যানার্জী

দীঘা

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

সরকারের অনৈতিক সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরণে ইউজিসির নিয়মকে লঙ্ঘন, আদালতের পথে চাকুরী প্রার্থীদের একাংশ!

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি

কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের ধামাকাদার বেতন বৃদ্ধি